kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৯ নভেম্বর ২০২২ । ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ ।  ৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

অভিমত

গ্যাসসংকটে সিরামিক পণ্য রপ্তানি ব্যাহত

ইরফান উদ্দিন

২৪ নভেম্বর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গ্যাসসংকটে সিরামিক পণ্য রপ্তানি ব্যাহত

বাংলাদেশে সিরামিকশিল্পের সম্ভাবনা অনেক ভালো। দেশের চাহিদা পূরণের পাশাপাশি ছোট পরিসরে রপ্তানি শুরু হয়েছে। সামনে রপ্তানির পরিমাণ ব্যাপকভাবে বাড়বে। এখন আমরা যদি আমাদের উৎপাদনটি ঠিক রাখতে পারি, তাহলে সামনে আমাদের প্রবৃদ্ধি আরো বাড়বে।

বিজ্ঞাপন

গত ১০ বছরেই সিরামিক খাতে ২০০ শতাংশ পর্যন্ত প্রবৃদ্ধি হয়েছে।

এই মুহূর্তে সিরামিক খাতে গ্যাসই সবচেয়ে বড় প্রতিবন্ধকতা। কারখানাগুলোতে সব সময় গ্যাস পাওয়া যাচ্ছে না। যার কারণে সক্ষমতা অনুযায়ী উৎপাদনে যেতে পারছি না। গ্যাসসংকট, ডলারের মূল্যবৃদ্ধি ও কাঁচামালের মূল্যবৃদ্ধিসহ নানা কারণে আমাদের পণ্য উৎপাদন খরচ ৩৫ থেকে ৪০ শতাংশ বেড়ে গেছে। সিরামিক খাতের প্রায় শতভাগ কাঁচামালই বিদেশ থেকে আমদানি করতে হয়। উৎপাদন ব্যয় বাড়লেও কিন্তু ক্রেতারা বাড়তি অর্থ দিচ্ছে না। এতে আমাদের লোকসান গুনতে হচ্ছে। যত দিন গ্যাসের সরবরাহ ঠিক না হবে তত দিনই আমাদের লোকসানের মধ্য দিয়েই যেতে হবে। তবে দীর্ঘ সময় লোকসানে থাকলে কোনো খাতই টিকে থাকতে পারে না।

একসময় বিদেশ থেকে আমদানি করে দেশে সিরামিক পণ্যের বেশির ভাগ চাহিদা পূরণ হতো। এখন বাংলাদেশে উৎপাদিত সিরামিক পণ্য দেশের বাজারের প্রায় ৮৫ থেকে ৯০ শতাংশ চাহিদা মিটিয়ে বিশ্বের ৫০টিরও বেশি দেশে রপ্তানি হচ্ছে। চলমান গ্যাসসংকট দেশের বাজারে সিরামিক পণ্যের সরবরাহ ঘাটতির পাশাপাশি রপ্তানিতেও বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে। সিরামিক পণ্য রপ্তানিতে আমরা চলতি বছরে ১০ শতাংশ প্রবৃদ্ধি আশা করেছিলাম। কিন্তু গ্যাসসংকটের কারণে সেই লক্ষ্য পূরণ হবে না।

সরকার সম্প্রতি গ্যাসের দাম বাড়িয়েছে, কিন্তু আমরা সেই তুলনায় গ্যাস পাচ্ছি না। যেহেতু সিরামিক পণ্য উৎপাদনে প্রধান জ্বালানি গ্যাস, তাই সিরামিক কারখানায় নিরবচ্ছিন্ন গ্যাস সরবরাহ নিশ্চিত করার জন্য সরকারের কাছে সংগঠনের পক্ষ থেকে একাধিকবার চিঠি দেওয়া হয়েছে। তবে গত দুই-তিন মাসের তুলনায় এখন গ্যাস সরবরাহে কিছুটা উন্নতি হয়েছে। আগে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে ১২ ঘণ্টা গ্যাস থাকত না, এখন গড়ে এলাকাভেদে ছয় থেকে আট ঘণ্টা গ্যাস থাকছে না। মূলত সন্ধ্যার পর থেকেই গ্যাস থাকে না।

আমরা সবচেয়ে ভালো মানের কাঁচামাল আমদানি করি। এর ফলে আমাদের উৎপাদিত পণ্যের মান অনেক ভালো হয়। যার কারণে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমাদের পণ্যের চাহিদা বাড়ছে।

সাধারণ সম্পাদক, বিসিএমইএ এবং পরিচালক, ফার সিরামিক



সাতদিনের সেরা