kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৯ নভেম্বর ২০২২ । ১৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ ।  ৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

৫০ দেশে রপ্তানি হচ্ছে সিরামিক

নিজস্ব প্রতিবেদক   

২৪ নভেম্বর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



৫০ দেশে রপ্তানি হচ্ছে সিরামিক

নিজেদের চাহিদা মিটিয়ে এখন বিদেশে রপ্তানি হচ্ছে দেশে উৎপাদিত সিরামিক। বাংলাদেশে উৎপাদিত সিরামিকের মান অত্যন্ত উন্নত হওয়ায় এবং নান্দনিক নকশার কারণে বিশ্ববাজারে এর চাহিদা ব্যাপকভাবে বাড়ছে। জাতীয় অর্থনীতির প্রবৃদ্ধি অর্জনেও গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখছে সিরামিকশিল্প।

খাতসংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, এক যুগ আগেও বিদেশ থেকে আমদানি করে দেশে সিরামিকপণ্যের বেশির ভাগ চাহিদা পূরণ হতো।

বিজ্ঞাপন

এখন বাংলাদেশে উৎপাদিত সিরামিকপণ্য দেশের বাজারের প্রায় ৯০ শতাংশ চাহিদা মিটিয়ে বিশ্বের ৫০টিরও বেশি দেশে রপ্তানি হচ্ছে। বাংলাদেশে উৎপাদিত সিরামিকপণ্যের মধ্যে টেবিলওয়্যার বা তৈজসপত্র, ফ্লোর টাইলস, স্যানিটারি, কমোড ও বেসিনের অনেক চাহিদা রয়েছে বিভিন্ন দেশে। বছরে ৫০০ কোটি টাকার বেশি সিরামিকপণ্য রপ্তানি হচ্ছে।

২০২২-২৩ অর্থবছরে এই খাতে রপ্তানির লক্ষ্যমাত্রা ৮০০ কোটি টাকা। তবে বর্তমানে গ্যাসসংকটের কারণে তা বাধাগ্রস্ত হচ্ছে।

বাংলাদেশ সিরামিক ম্যানুফ্যাকচারার্স অ্যান্ড এক্সপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের (বিসিএমইএ) তথ্য মতে, বর্তমানে দেশে উৎপাদিত বেশির ভাগ সিরামিক যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, পোল্যান্ড, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, ক্রোয়েশিয়া, রোমানিয়া, তুরস্ক, রাশিয়া, স্পেন, নরওয়ে, নিউজিল্যান্ড, ডেনমার্ক, ইতালি ও অস্ট্রেলিয়ায় যাচ্ছে। এ ছাড়া আর্জেন্টিনা, অ্যাঙ্গোলা, অস্ট্রিয়া, ব্রাজিল, বেলজিয়াম, ব্রুনেই, কানাডা, কলম্বিয়া, চিলি, ফিনল্যান্ড, ফ্রান্স, গ্রিস, হাঙ্গেরি, ইরান, আয়ারল্যান্ড, জর্দান, কোরিয়া, কুয়েত, লিবিয়া, লেবানন, মিসর, মালয়েশিয়া, মালদ্বীপ, মিয়ানমার, নেদারল্যান্ডস, নেপাল, পাকিস্তান, পেরু, ওমান, কাতার, সুইডেন, সুইজারল্যান্ড, সৌদি আরব, সিঙ্গাপুর, শ্রীলঙ্কা, থাইল্যান্ড ও তাইওয়ানে সিরামিকপণ্য রপ্তানি হচ্ছে।

বিসিএমইএর সভাপতি সিরাজুল ইসলাম মোল্লা কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘উন্নত গুণগতমান ও আকর্ষণীয় ডিজাইনের কারণে বিশ্ববাজারে বাংলাদেশে তৈরি সিরামিকপণ্যের কদর বাড়ছে। শুধু তাই নয়, একই সঙ্গে নতুন নতুন বাজারও সৃষ্টি হচ্ছে; এমনকি এই শিল্পে বড় উৎপাদনকারী দেশ চীন ও ভারতের নজরও এখন বাংলাদেশের দিকে। বিশ্বকে চমকে দিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশের সিরামিকপণ্য। ’

সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘তাই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে অনুরোধ জানাচ্ছি, তিনি যদি সিরামিকপণ্য রপ্তানি খাতে আরো সুনজর দেন, তাহলে সিরামিকপণ্য রপ্তানি আরো বৃদ্ধি পাবে। দেশের অর্থনীতিতে আরো গুরুত্ব ভূমিকা রাখতে পারবে এই খাত। ’

বিসিএমইএর সভাপতি আরো বলেন, ‘মাত্র এক যুগ আগেও দেশে সিরামিকপণ্যের বাজার ছিল আমদানিনির্ভর। দেশের বাজারের প্রায় পুরো চাহিদা আমদানীকৃত সিরামিকপণ্যে পূরণ হতো। এখন আমাদের দেশে উৎপাদিত সিরামিকপণ্য দেশের বাজারের ৯০ শতাংশ চাহিদা পূরণ করে ইউরোপের বিভিন্ন দেশসহ বিশ্বের ৫০টিরও বেশি দেশে রপ্তানি হচ্ছে। ’ সরকার সিরামিকপণ্য রপ্তানিতে ২০ শতাংশ প্রণোদনা সুবিধা দিলে রপ্তানির পরিমাণ উল্লেখযোগ্য হারে বাড়বে বলেও তিনি জানান।

বিসিএমইএর সাধারণ সম্পাদক ইরফান উদ্দিন কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আমাদের দেশের গ্যাসের কোয়ালিটি খুবই ভালো, যার কারণে আমাদের পণ্যের মানও ভালো আসে। ফলে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আমাদের পণ্যের চাহিদা বাড়ছে। সিরামিকপণ্য রপ্তানিতে আমরা চলতি বছরে ১০ শতাংশ প্রবৃদ্ধি আশা করেছিলাম; কিন্তু গ্যাসসংকটের কারণে সেই লক্ষ্য পূরণ হবে না। ’



সাতদিনের সেরা