kalerkantho

শুক্রবার । ৯ ডিসেম্বর ২০২২ । ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ । ১৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

কফি শপ

আমিনুল ইসলাম

৭ অক্টোবর, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



তুমি দুধ চা ভালোবাসো; চিনি ছাড়া কফিও। মাঝে

মাঝে তাই কাজভাঙা বিকেলে ইউনিমার্টে যাও;

রুমমেটের মনে সঙ্গে নাও এ আমাকেও;

দারুণ টেস্ট হয়েছে! একবার চুমু দিয়ে দেখো!

না। আমি কোনোটাতেই ঠোঁট লাগাই না।

শুধু আড়চোখে চেয়ে থাকি চুমুক আসক্ত অনেক অধরে...

 

তৃপ্তির ঢেকুর তুলতে তুলতে ঘরে ফেরো তুমি,

অন্তরঙ্গ আনন্দে ফুলে ওঠে আমার বুক

সময় সিগন্যাল দিলে আমি ঠোঁট ভিড়াই

তোমার কফি শপের ঘ্রাণ লেগে থাকা ঠোঁটে;

কী আশ্চর্য, ঠোঁটে এত পিপাসা তোমার!

কফির ধোঁয়ার মতো উড়তে থাকে তপ্ত

নিঃশ্বাস; ঘরময়; জোয়ার, ঢেউ, ছলছলানী!

মাছের কুত্কুৎ উল্লাস, গাঙচিলের ডানার

মাতাল ডাইভিং আঁ..আঁ..ওয়া..ওয়া..কুঁয়ো..কুঁয়ো!

অতঃপর স্বপ্নহীন ভাটার নদী; তলিয়ে যাও

তুমি—এক প্রশান্তপ্রাণ অনস্তিত্ব; তৃপ্তির

পাঠশালার মেধাবী স্টুডেন্ট—আমি চেয়ে

থাকি আরো কিছুক্ষণ আলো-আঁধারের নদীতে।

বিজ্ঞাপন

 

ইউনিমার্টের ব্যর্থ চা-কফির বিলটা রোজ

আমিই দিই। খুশি মনে। তৃষিত অধরে

অব্যর্থ চুমুর বিলটা কে দেয়,

সে কথা ভেবে দেখার সময় হয় না আমাদের।

 



সাতদিনের সেরা