kalerkantho

সোমবার । ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ । ১১ আশ্বিন ১৪২৯ ।  ২৯ সফর ১৪৪৪

৪০ বছর পরও অটুট যে প্রেম

নিলীমা বিশ্বাস, পটুয়াখালী

৫ আগস্ট, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



৪০ বছর পরও অটুট যে প্রেম

মৈত্রেয়ী দেবী

মৈত্রেয়ী দেবীর ‘ন হন্য তে’ আসলে এক স্মৃতিচারণামূলক উপন্যাস। ১৯৩০ সালে ঘটে যাওয়া একটি কাহিনির স্মৃতিচারণা। ৪০ বছর পর মৈত্রেয়ী দেবীর প্রাক্তন বিচ্ছেদের পুনর্জাগরণ প্রকাশ পেয়েছে এখানে। চঞ্চল, জেদি, অকুণ্ঠ, তরুণী মৈত্রেয়ী কী করে হতাশায় ডুবে ভালোবাসার মানুষটির অভাবে ধীরে ধীরে ধৈর্যশীল, শান্ত আর পরিণত হয়ে ওঠেন তারই প্রেক্ষাপট চিত্রিত হয়েছে এখানে।

বিজ্ঞাপন

ভিনদেশি মির্চা এলিয়াদ ভারতীয় দর্শনশাস্ত্র পড়ছিলেন মৈত্রেয়ীর বাবার কাছে। সেই সূত্রে মৈত্রেয়ী আর মির্চার তো বন্ধুত্বের শুরুটা ছিল অবাধ। একসময় তা প্রেমে গড়ায়। তাঁরা জানতেন, মৈত্রেয়ীর পরিবার এই সম্পর্কটিকে সহজে মেনে নেবে না। তা-ও ক্ষীণ আশা নিয়ে তাঁদের প্রেম অবাধে বেশ ভালোই চলছিল। মৈত্রেয়ীর ছোট বোনের বদৌলতে আর মায়ের কল্যাণে একে একে সবাই জেনে গেল তাঁদের কথা। ফলে এক কাপড়ে মৈত্রেয়ীর বাড়ি থেকে বের হয়ে যেতে হলো মির্চাকে। দোতলা থেকে এসব দেখে মৈত্রেয়ী মূর্ছা গেলেন। পরে যোগাযোগের অনেক চেষ্টা করেছিলেন মির্চার সঙ্গে। তবে মির্চার কথা দেওয়া ছিল মৈত্রেয়ীর বাবার কাছে, কোনোভাবেই যোগাযোগ রাখবেন না। ফলাফল দুজনের আর কখনোই মিলন হলো না।

            অনুলিখন : পিন্টু রঞ্জন অর্ক



সাতদিনের সেরা