kalerkantho

বৃহস্পতিবার ।  ১৯ মে ২০২২ । ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৭ শাওয়াল ১৪৪৩  

কবিতায় মানুষের মানচিত্র

নূরে আলম সিদ্দিকী শান্ত, শেরপুর

২৮ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কবিতায় মানুষের মানচিত্র

রুদ্র মুহম্মদ শহিদুল্লাহ

রুদ্র মুহম্মদ শহিদুল্লাহর কবিতায় ধরা দেয় ব্যথিত হৃদয়ের আর্তনাদ, মানবচিত্তের উচ্চকণ্ঠ প্রতিবাদ, সহস্র বছর ধরে ঝরনার জলের মতো প্রবাহিত সত্য ও সুন্দর প্রেম। যার কণ্ঠস্বর সর্বদা স্বৈরাচারী শোষণ ও সাম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে।

১৯৯৪ সালে কবির মৃত্যুর তিন বছর পর সেরা কবিতার সংকলন নিয়ে প্রকাশিত হয় রুদ্র মুহম্মদ শহিদুল্লাহর ‘শ্রেষ্ঠ কবিতা’। বইটিতে স্থান পেয়েছে উপকূল উপদ্রুত, ফিরে চাই স্বর্ণগ্রাম, মানুষের মানচিত্র, ছোবল, গল্প, দিয়েছিলে সকল আকাশ, মৌলিক মুখোশ শিরোনামের কবিতা।

বিজ্ঞাপন

কবির লেখা ১০টি কালজয়ী গান ছাড়াও ‘এক গ্লাস অন্ধকার’ কাব্যগ্রন্থের নির্বাচিত কবিতাও স্থান পেয়েছে। যে গ্রন্থের অভিমানের খেয়া, বাতাসে লাশের গন্ধ, অস্ত্র চাই, খতিয়ান, শব্দ শ্রমিক, মিছিল, করাঘাতের মতো অসংখ্য কবিতা গণমানুষের মনে কবির জন্য ভালোবাসার আসন পাকাপোক্ত করেছে। শ্রেষ্ঠ কবিতায় ঠাঁই পাওয়া গান, ‘ভালো আছি ভালো থেকো, আকাশের ঠিকানায় চিঠি লিখো’ আজও মানুষের ঠোঁটের কোণে বাজে গুনগুনিয়ে। এক কথায় বইটি কবির প্রতিনিধিত্বশীল কবিতা ও গানের সংকলন। এ কাব্যগ্রন্থ সংকলনের প্রতিটি কবিতায় কবির মৌল প্রবণতা প্রকাশ পায়। রুদ্রের কবিতার ভুবনে প্রবেশের দরজা এই কাব্য সংকলন। যার মাধ্যমে কবির কাব্যশৈলী, ভাবনা ও চিন্তা-চেতনা সহজেই অনুভব করা যায়।



সাতদিনের সেরা