kalerkantho

বুধবার । ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৮। ১ ডিসেম্বর ২০২১। ২৫ রবিউস সানি ১৪৪৩

এত ভালোবেসে শবনম কি তবে উড়াল দিল?

কুশলপ্রসাদ মণ্ডল, তথ্যবিজ্ঞান ও গ্রন্থাগার ব্যবস্থাপনা বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

২৬ নভেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



এত ভালোবেসে শবনম কি তবে উড়াল দিল?

সৈয়দ মুজতবা আলী

সৈয়দ মুজতবা আলীর অনবদ্য সৃষ্টি ‘শবনম’। মজনুনের সঙ্গে তুর্কি বংশোদ্ভূত শবনমের প্রথম দেখা হয় আফগানিস্তানের পাগমান শহরে। শবনমের সঙ্গে মজনুনের প্রেম, পরিণয়, বিচ্ছেদের মাধ্যমে উত্তম পুরুষে বর্ণিত কাহিনি এগিয়েছে। মজনুন ফারসি, উর্দু, ফরাসি, বাংলা কবিতায় শবনমকে মুখরিত করে রাখে। শবনমও কবিতার ফুলঝুরি ছোটায়। প্রেমের অমিয় বাণী কাব্যমধুর বর্ণনায় ফুল হয়ে উপন্যাসের পাতায় পাতায় সুবাস ছড়ায়। মুগ্ধতার রেশে কবি হয়ে আসেন খাজা শামসুদ্দীন মুহাম্মদ হাফিজ, শেখ সাদী, জালালুদ্দিন রুমি, কলিম কাসানি, সত্যেন দত্ত, কালিদাস প্রমুখ জগদ্বিখ্যাত কবি। পাঠকের বারবার মনে হবে, সত্যিই কি মুজতবা আলীর সঙ্গে শবনম নামের কোনো নারীর প্রণয় ছিল? জীবন সম্পর্কে লেখকের দর্শনের পরিচয়ও মিলবে। লেখক বলছেন, ‘এক-একটি অভিজ্ঞতা যেন এক এক ফোঁটা চোখের জলের রুদ্রাক্ষ। সব কটা গাঁথা হয়ে যে তসবি-মালা হয় তারই নাম জীবন।’ শবনম আর মজনুনের সুখ বেশি দিন স্থায়ী হয়নি। এক পর্যায়ে শবনম মজনুনকে লেখে, ‘বাড়িতে থেকো। আমি ফিরব।’ কিন্তু দিন, মাস, বছর চলে যায়, শবনম ফেরে না। এত ভালোবেসে শবনম কি তবে উড়াল দিল?



সাতদিনের সেরা