kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১২ কার্তিক ১৪২৮। ২৮ অক্টোবর ২০২১। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

শচীশ কি পরাজিত হয়েছিল?

তর্ণিকা হাজরা, বাংলা বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



শচীশ কি পরাজিত হয়েছিল?

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘চতুরঙ্গ’ উপন্যাসের প্রধান চরিত্র শচীশ, দামিনী ও শ্রীবিলাস। তারা চলমান জীবনের পথিক। চরিত্র তিনটির অন্তর্দ্বন্দ্ব ও পারস্পরিক টানাপড়েনে তাদের ভেতরকার পরিবর্তন দেখিয়েছেন লেখক। প্রতিটি চরিত্রই একান্তভাবে অন্তর্লীন ভাবনায় নিমগ্ন। বহির্বিশ্বের সব ঘটনাই মানবমনের পরিবর্তনে সক্রিয় ভূমিকা রাখে। উপন্যাসের নায়ক শচীশ তার আকাঙ্ক্ষিত সত্যকে জীবনের মধ্যে না খুঁজে কখনো জ্যাঠামশাইয়ের জ্ঞানমার্গের সাধনায়, কখনো বা লীলানন্দ স্বামীর রসের পথে পা বাড়িয়েছিল। কিন্তু তীব্র নৈরাশ্য আর শূন্যতার বোধই পেয়েছে তার পরিণাম হিসেবে। রূপ-অরূপের দ্বন্দ্ব থেকে বেরিয়ে অসীমের মুক্তির স্বাদ পায়নি সে। জীবনযন্ত্রণায় দগ্ধপীড়িত শচীশের তাই এ জীবনেই বারবার নতুন করে জন্ম নিতে হয় আপন চেতনালোকে। শেষ পর্যন্ত শচীশের পরাজয় হলেও তাকে দামিনীর প্রেমের ভেতর দিয়েই আত্মোপলব্ধিতে পৌঁছতে হয়। ‘চতুরঙ্গ’ উপন্যাসের চারটি অংশ মূলত শচীশের জীবনের চারটি পর্বান্তর, যা তার জীবনের ক্লান্তিহীন সন্ধান ও অনিবার্য যন্ত্রণার দলিল। চরিত্রগুলো আসলে উনিশ ও বিশ শতকের কলকাতাকেন্দ্রিক নতুন যুগের জীবনভাবনাকে উপস্থাপন করে।



সাতদিনের সেরা