kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ আশ্বিন ১৪২৮। ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৫ সফর ১৪৪৩

ভেতরটা বড় করলে বাইরেটা বড় হয়

অন্তিক সরকার, জামালপুর

৬ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



ভেতরটা বড় করলে বাইরেটা বড় হয়

শিশুর মনস্তাত্ত্বিক বিকাশের জন্য চিন্তাশক্তির কাঠামো দৃঢ় হওয়া কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা সন্জীব চট্টোপাধ্যায় তুলে ধরেছেন ‘ইতি তোমার মা’ উপন্যাসে। মূল চরিত্র বুড়ো নামে এক স্কুলপড়ুয়া ছেলে। এই বইয়ের পৃষ্ঠায় পৃষ্ঠায় জীবন গড়ার নানা শিক্ষা বুড়োর সঙ্গে সব চরিত্রের কথোপকথনের মাধ্যমে ফুটে উঠেছে। বুড়োর মা দেখতে দেবীর মতো। বুড়োর মা সম্পর্কে তার দাদু বলেছিলেন, ‘বুড়োর মাটা রাগপ্রধান, উচ্চাঙ্গের। সুর আছে, লয় আছে, তাল আছে।’ শরীরের সঙ্গে সঙ্গে মনেরও যে বৃদ্ধি আবশ্যক তার প্রথম পাঠটা দাদাই দিয়েছিলেন। মা-বাবাকে নিয়ে ভালোই চলছিল বুড়োদের পরিবার। কিন্তু নিরীহ তপনকে বড়লোকের বখাটে শ্যামলের হাত থেকে বাঁচাতে গিয়ে ফেঁসে যায় বুড়ো। একদিকে মিথ্যা মামলা, অন্যদিকে মায়ের ক্যান্সার—এভাবেই এগিয়ে যেতে থাকে গল্প। শেষে বুড়োর মায়ের লেখা একটা চিঠি আছে। সেখানে লেখা—“আমি আমি করবে না। ‘আমি’ বলে কিছু নেই। সবই ‘তুমি’। ভেতরটা বড় করলে বাইরেটা বড় হয়। নকল থেকে আসল বেছে নিতে শেখো। তোমার দাদির বাড়িকে অপবিত্র করো না। প্রতিষ্ঠা মানে সত্যের প্রতিষ্ঠা। ঐশ্বর্য হলো চরিত্র। যুদ্ধ হলো নিজের সঙ্গে। জয় হলো নিজেকে জয়।”

অনুলিখন : পিন্টু রঞ্জন অর্ক



সাতদিনের সেরা