kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৮ আশ্বিন ১৪২৮। ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১। ১৫ সফর ১৪৪৩

সেই চিত্র আজও বদলায়নি

মোহাম্মদ রাজন মিয়া, প্রভাষক, ব্রাহ্মণবাড়িয়া সরকারি কলেজ

৬ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



সেই চিত্র আজও বদলায়নি

গ্রামের মানুষ সম্পর্কে আমাদের মনে যে ধারণা আছে তার ঠিক বিপরীত চিত্র আছে শরত্চন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের ‘পল্লীসমাজ’ উপন্যাসে। পল্লীবাসীর মধ্যে কূটকৌশল, আত্মস্বার্থের জন্য মিথ্যা সাক্ষ্য দেওয়া, পরশ্রীকাতরতা, সামান্য চালতাগাছ নিয়ে মামলার মধ্য দিয়ে নিঃস্ব হওয়ার মতো চিত্র দেখা যায়। রমেশ যখন উচ্চশিক্ষা নিয়ে গ্রামে ফিরে বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করে, হিন্দু-মুসলমানের ঐক্য তৈরি করে, তখন বাধা হয়ে দাঁড়ায় কায়েমি গোষ্ঠী। শুরু হয় নিপীড়ন। রমেশ বা বিশ্বেশ্বরী মনে করে এসবের প্রতিকার সম্ভব জ্ঞান, সহনশীলতা ও সংঘশক্তির জাগরণে। অস্থিতিশীল এই বিশ্বে শান্তির জন্য আমাদের দরকার রমেশের মতো গণনায়ক। উপন্যাসে রমেশের শেষ আশ্রয়স্থল বিশ্বেশ্বরী। সামাজিক বাধা, কূটকৌশল, কুসংস্কার, লোকলজ্জা আর অপবাদের ভয়ে রমা রমেশের পক্ষ অবলম্বন না করতে পারলেও শেষে রমেশের হাতেই সব সম্পদ আর ছোট ভাইকে সঁপে দিয়ে কাশিগামী হয়। স্বার্থপর, ক্ষমতালিপ্সু সেই সঙ্গে ভীতু চরিত্রের বেণীমাধব যেন চলমান সমাজপতিদেরই প্রতিচ্ছবি। পল্লীসমাজের এই চিত্র যেন সর্বকালের।



সাতদিনের সেরা