kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭। ২৬ নভেম্বর ২০২০। ১০ রবিউস সানি ১৪৪২

ভোলক্যানো

জুয়েল মাজহার

২৩ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



ভোলক্যানো

ছিল শান্ত, অচঞ্চল। নাগালের বাইরে সমাহিত।

তবু কেন বনতল অসময়ে কেঁপে উঠল ঝড়ে

 

শীতের ভেতর থেকে মাঘশীর্ষে যেন কেউ

ফস করে বসন্তের আগুন জ্বালাল

 

বহুকাল সুপ্ত থেকে হঠাৎ জেগেছে ভোলক্যানো

 

২.

ঠাঁই নাই। সামান্য এ-হৃদয়কুঠুরি।

ভুল করে তাতে এসে কে লাগায় মধুর কামড়

 

৩.

কালো চুলে পাক ধরছে

একে একে ঝরে পড়ছে সিংহের সুদীপ্র কেশর

 

৪.

প্রেম এক দুর্ঘটনা। অসময়ে এলে!

লগ্ন পেরিয়ে গেলে কামনার লাবণ্য-পরাগ

অস্থানেই বৃথা ঝরে পড়ে

 

৫.

প্রেমাঙ্কুর দিয়ে কে গো শান্ত, নত করতে চায়

রক্তচক্ষু লাল দানবেরে?

 

শুশ্রূষার বরাভয় কে বিছাতে চায় এই

লাবণ্যসংকাশহীন মনে!

 

৬.

সরাইখানার নিচে একটু কেশে থেমে আছে গাড়ি;

 

জীবিতকে নিয়ে যাবে গন্তব্যে ও দূরে;... হয়তো বা

জীবিতের ছদ্মবেশী আরোহীকে অন্য কোনো সরাইখানায়

 

৭.

‘চেক আউট। চটজলদি।

কেননা সময় বড় কম!’

 

৮.

রবীন্দ্রবাবুর গান। টপ্পাঙ্গের।

অসময়ে কেউ গাইছে তোমাকে শোনাতে।

 

তোমার দু-কানে তালা।

চোখ ঝাপসা গ্লুকোমায়

 

চেক আউট।

এবার বিদায়

 

৯.

সীমান্ত ও কাঁটাতার ঝোলাকাঁধে পার হতে হবে

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা