kalerkantho

মঙ্গলবার । ১১ কার্তিক ১৪২৭। ২৭ অক্টোবর ২০২০। ৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

এখন পুঁজি ভেঙে খেতে হচ্ছে

ইফতেখার রসুল জর্জ, নওরোজ সাহিত্য সম্ভার

২ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



এখন পুঁজি ভেঙে খেতে হচ্ছে

স্বাস্থ্যবিধি মেনে সাড়ে ১০টা-১১টায় দোকান খুলি এবং সাড়ে ৪টায় বন্ধ করি। বাজারে ক্রেতা নেই। জেলা শহর থেকেও ক্রেতা আসে না বললেই চলে। এখন পুঁজি ভেঙে খেতে হচ্ছে। আগে যেখানে পাঁচ টাকা খরচ হতো, এখন লাগছে সাত টাকা। আয় বাড়েনি, ব্যয় বেড়েছে। বাংলা একাডেমি কিছু শর্ত জুড়ে দিয়ে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছে। মেলায় অংশগ্রহণে আগ্রহীদের আগাম আবেদন করতে হবে। নিয়ম মেনেই আবেদন করেছি। একুশের বইমেলায় অংশগ্রহণ থেকে বিরত হচ্ছি না। মুজিববর্ষ চলছে। তাই বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে গোটা পনেরো নতুন বই করেছি। মেলায় নতুন বই করার পরিকল্পনা নেই। যে বইগুলো বেশি চলে সেগুলো পুনর্মুদ্রণ করছি। যেমন—সূর্য দীঘল বাড়ি, পদ্মার পলিদ্বীপ, আবু ইসহাকের উপন্যাস সমগ্র, সোনালি কাবিন, বখতিয়ারের ঘোড়া, কালের কলসসহ আল মাহমুদের নির্দিষ্ট কিছু বই, জসীমউদ্দীন : কবিতা ও কাব্য সাধনা—এই বইগুলো অনার্স-এমএতে পাঠ্য। এগুলো চলেই। করোনাকালেও এই বইগুলো রিপ্রিন্ট করেছি। যেটা শেষ হয়, সেটাই করি।

 

মন্তব্য