kalerkantho

শনিবার । ২৭ আষাঢ় ১৪২৭। ১১ জুলাই ২০২০। ১৯ জিলকদ ১৪৪১

লে খা র ই শ কু ল

আমেরিকায় বহুল বিক্রীত প্রথম উপন্যাসের লেখক জেমস ফেনিমোর কুপার

১৫ মে, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আমেরিকায় বহুল বিক্রীত প্রথম উপন্যাসের লেখক জেমস ফেনিমোর কুপার

আমেরিকার সাহিত্যের উনিশ শতকের প্রথমার্ধের একজন লেখক ছিলেন জেমস ফেনিমোর কুপার। তাঁর জন্ম ১৭৮৯ সালে। আমেরিকার সাহিত্যে সতেরো থেকে উনিশ শতকের আদিবাসী আমেরিকানদের জীবন অনন্য স্থান পেয়েছে জেমস ফেনিমোর কুপারের হাতে। তাঁর বিখ্যাত সৃষ্টির মধ্যে রোমান্টিক উপন্যাস ‘দ্য লাস্ট অব দ্য মোহিকানস’ বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। উনিশ শতকের বহুল পঠিত আমেরিকান উপন্যাসের অন্যতম এ উপন্যাসটি। এ উপন্যাসটিকে তাঁর প্রধান রচনা হিসেবেও গণ্য করা হয়। সামাজিক, রাজনৈতিক ও ঐতিহাসিক কথাসাহিত্য এবং অন্যান্য ধরনের গদ্যও রচনা করেন তিনি। ইউরোপীয় শিল্প-সাহিত্যের প্রভাববলয় থেকে আমেরিকার নিজস্ব শিল্প-সাহিত্য বিকাশে আজীবন সচেষ্ট ছিলেন কুপার। ব্রিটিশ ঔপন্যাসিক জেন অস্টিনের লেখা পড়ে উৎসাহ পেয়ে ১৮২০ সালে বেনামে প্রকাশ করেন তাঁর প্রথম উপন্যাস ‘প্রিকশন’। উপন্যাসটি মোটামুটি পাঠক সাড়া পেয়েছে দেখে তিনি উপন্যাস লেখায় মনোযোগী হন এবং পরের বছরই ‘দ্য স্পাই’ প্রকাশ করেন। এ উপন্যাসটি আরো বেশি সাড়া জাগায়। দেশে এবং দেশের বাইরে পাঠক চাহিদা মেটানোর জন্য শিগগিরই কয়েক মুদ্রণ শেষ হয়ে যায়। আমেরিকায় বহুল বিক্রীত প্রথম উপন্যাস হিসেবে ইতিহাসে জায়গা নিয়ে আছে তাঁর এ উপন্যাসটি।

ইউরোপ সম্পর্কে প্রত্যক্ষ অভিজ্ঞতা অর্জন এবং তাঁর বইয়ের প্রচার-প্রসারের লক্ষ্যে ১৮২৬ সালে তিনি ইউরোপ যাত্রা করেন। প্যারিসে থাকা অবস্থায় ‘দ্য প্রেইরি’, ‘দ্য রেড রোভার’ এবং ‘দ্য ওয়াটার উইচ’ প্রকাশ করেন। একজন সচেতন সামাজিক সংগঠক হিসেবে ১৮২৩ সালে ব্রেড অ্যান্ড চিজ ক্লাব গড়ে তোলেন। আমেরিকার লেখক, সম্পাদক, শিল্পী, পণ্ডিত, শিক্ষাবিদ, শিল্পের পৃষ্ঠপোষক, আইনজীবী, বণিক, রাজনীতিকসহ আরো অনেক স্তরের মানুষের ঐক্য তৈরি করা ছিল প্রধান উদ্দেশ্য। ইউরোপে থাকাকালে তিনি পোল্যান্ডের স্বায়ত্তশাসনের পক্ষে সোচ্চার ছিলেন। পোল্যান্ডের বিদ্রোহীদের সমর্থনে প্যারিসে একটি ক্লাব প্রতিষ্ঠা করেন। একসময় হেনরি ডেভিড থরু তাঁর নিজের লেখায় কুপারের শৈলী ব্যবহার করেন। ইংরেজ ঔপন্যাসিক ডি এইচ লরেন্স মনে করেন, ফেনিমোর কুপারের চমৎকার পরিপক্ব ও সংবেদনশীল শিল্পের পাশে তুর্গেনেভ, তলস্তয়, দস্তয়েভস্কি, মোপাসাঁ ও ফ্লবেয়ারের সৃষ্টি যথেষ্ট কম মার্জিত। তাঁর মতে, কুপারের ‘দ্য ডিয়ারস্লেয়ার’ বিশ্বসাহিত্যের সুন্দরতম ও নিখুঁত গ্রন্থগুলোর অন্যতম। কুপারকে পুরোপুরি রোমান্টিক মনে করতে কারো কারো আপত্তি থাকলেও ভিক্টর হুগো মনে করেন, কুপার হলেন ফরাসি সাহিত্যের বাইরে তাঁর শতকের শ্রেষ্ঠ ঔপন্যাসিক। ফরাসি ঔপন্যাসিক ও নাট্যকার বালজাক কুপারের কোনো কোনো লেখার সমালোচনা করলেও তাঁর ‘দ্য পাথফাইন্ডার’কে শ্রেষ্ঠ রচনা বলেন এবং প্রকৃতিচিত্র উপস্থাপনে কুপার ওয়াল্টার স্কটের সমতুল্য বলে মনে করেন তিনি। মার্ক টোয়েন অবশ্য কৌশলে কুপারের রোমান্টিক কাহিনিবিন্যাসের সমালোচনা করেন, বিশেষ করে ‘দ্য ডিয়ারস্লেয়ার’ এবং ‘দ্য পাথফাইন্ডার’—এ দুটি বইয়ের। ব্রিটেন, ফ্রান্সসহ অন্যান্য জায়গার মতো রাশিয়ায়ও কুপারের উপন্যাসের জনপ্রিয়তা তৈরি হয়।  কুপার মারা যান ১৮৫১ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর।

►দুলাল আল মনসুর

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা