kalerkantho

শনিবার । ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ । ৩০  মে ২০২০। ৬ শাওয়াল ১৪৪১

হারিয়ে যাওয়া পিপাসার ঋতু

আমিনুল ইসলাম

৪ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ১ মিনিটে



বৃষ্টির নূপুর শুনে যে-নদী নেচে ওঠে আপনার নিঃসঙ্গ অন্তরে,

আর বলে ও আকাশ, চাও তো সিন্ধুমুখি পানিপথে সাথি হয়ে যাও!

আমি তার কাছে সঁপেছিলাম আমার যাবতীয় জলশূন্য দিন।

আমার মতো আরো কি কেউ—যখন কৃষ্ণপক্ষের অন্ধকার ডাক দেয়—

দরখাস্ত জমা দিয়েছিল গোপনে গোপনে!

পথ হারিয়ে ইশারায়-এলোমেলো হাওয়ার পিঠে চড়েও

কখনো কখনো গন্তব্যে যাওয়া যায়। হয়তো এ কৃতিত্ব

কারো নয়, নাকি প্রশ্নবিদ্ধ নিয়তির? আমিও তেমনি

এক প্রশ্নবিদ্ধ নিয়তির মুখোমুখি; তুমি ছুঁতে পারোনি

সমুদ্র-মোহনা, নাকি পথের গোলকধাঁধায় খুইয়েছো সব—

এ-সংক্রান্ত তথ্য নেই বাতাসের হাতে। মোহনায়

ফোন করে জেনেছি যে তোমার খবর সেখানে জানে না

কেউ; আর আমাকে ডাকছে আবার করতোয়ার

একচিলতে ঢেউ; কিন্তু আমি তো ভুলে গেছি বর্ণজ্ঞান;

কিভাবে পড়ি আর জলে লেখা পিপাসার পাঠ!

ও সর্বনাশা নদী! কোনো দাবি নেই; নালিশেরও ভাষা

ভুলে গেছি; শুধু আমাকে ফিরিয়ে দাও পিপাসার ঋতু।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা