kalerkantho

শনিবার । ২৫ জুন ২০২২ । ১১ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৪ জিলকদ ১৪৪৩

টাঙ্গাব ইউনিয়নে গাছের চারা বিতরণ

নজরুল ইসলাম   

২৮ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



টাঙ্গাব ইউনিয়নে গাছের চারা বিতরণ

গফরগাঁওয়ে টাঙ্গাব ইউনিয়নে গাছের চারা বিতরণ করে শুভসংঘ

হিরন খন্দকার। গফরগাঁওয়ে টাঙ্গাব ইউনিয়নে পার করেছেন ৫২টি বছর। ছোট থেকেই তিনি পুরো ইউনিয়নে দেখে এসেছেন গাছের সারি। চারদিকে ছিল সবুজের সমারোহ।

বিজ্ঞাপন

সবুজের মায়ায় হারিয়েছেন বারবার, কিন্তু এখন আর সে সবুজ দেখা যায় না। গাছ কেটে উজাড় করা হয়েছে শত শত একর জায়গা। অনেকটা আক্ষেপ নিয়েই বলেন, ‘আগে কত গাছ ছিল এ এলাকায়। আমরা গাছের ছায়ায় নিজের শরীর জুড়িয়েছি। চারদিকে ছিল সবুজ আর সবুজ। এখন আর সেই সবুজ নেই। সব কেটে শেষ করে দেওয়া হয়েছে। তেমন কোনো গাছের দেখা মেলে না। ’ হিরন খন্দকারের মতো আক্ষেপ সফর আলী, হেদায়েত উল্লাহ ও করিম বক্সের।

এবার টাঙ্গাব ইউনিয়নে সবুজের সেই অস্তিত্ব ফিরিয়ে দিতে কাজে নেমেছে শুভসংঘ। সম্প্রতি বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের হাতে গাছের চারা তুলে দেয় শুভসংঘ টাঙ্গাব ইউনিয়ন শাখা। এ কার্যক্রমের অংশ হিসেবে গফরগাঁওয়ে বাশিয়া বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ে নিম, বকুল ফুল, জলপাই, আমড়া ও আমগাছের চারা রোপণের মাধ্যমে এ কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়।

এতে উপস্থিত ছিলেন টাঙ্গাব ইউনিয়ন শুভসংঘের উপদেষ্টা প্রভাষক মাসুদ রানা রাসেল, শুভসংঘের উপদেষ্টা আবদুল্লাহ তালুকদার, বাশিয়া বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আবদুল লতিফ খান প্রমুখ।

টাঙ্গাব ইউনিয়ন শুভসংঘের সভাপতি মোহাম্মদ শরীফ বলেন, ‘আমরা মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত বাশিয়া বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের মাধ্যমে পুরো টাঙ্গাব ইউনিয়নে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি শুরু করেছি। আমরা শিক্ষার্থীদের মাঝে গাছ লাগানোর উপকারিতা সম্পর্কে ্বলছি। আমরা একটি সবুজ বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখি। আমরা প্রত্যেক মানুষকে আমাদের এই কার্যক্রমে যুক্ত করতে চাই। এ জন্য সবার সহযোগিতা আমাদের প্রয়োজন। ’

বাশিয়া বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের সভাপতি ও শুভসংঘের উপদেষ্টা আব্দুল্লাহ তালুকদার বলেন, ‘কালের কণ্ঠ শুভসংঘের এই কর্মসূচিতে উপস্থিত হতে পেরে আমার খুবই ভালো লাগছে। শুভসংঘ এখন আমাদের সমাজের রোল মডেল। সারা দেশে শুভসংঘের বন্ধুরা যেভাবে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে, আমি অভিভূত। শুভসংঘের জন্য সব সময় দোয়া ও সহযোগিতা আমার থাকবে। ’

পুরো আয়োজনটির সমন্বয় করেন শিক্ষক নির্মল চন্দ্র দত্ত, সাংবাদিক নজরুল ইসলাম, সোহেল রানা, আলতাফ মণ্ডল, মোর্শেদ আলম প্রমুখ। সহযোগিতায় ছিলেন মো. শাহাব উদ্দিন, ইয়াসির আরাফাত, অনিক ফকির ও মো. শাহীন।



সাতদিনের সেরা