kalerkantho

শনিবার । ২৫ জুন ২০২২ । ১১ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৪ জিলকদ ১৪৪৩

অসহায় মানুষের জন্য খাবার

আপনারা আমাদের অনেক সাহায্য করেন। এর আগে আপনাদের কাছ থেকে কম্বল পেয়েছি। ঈদে পোশাক দিয়েছেন আপনারা। আজ খাবার দিলেন। আল্লাহর কাছে আপনাদের জন্য দোয়া করি। -রফিক মিয়া, রিকশাচালক

তাকবির হোসাইন মান্না   

২৮ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অসহায় মানুষের জন্য খাবার

মৌলভীবাজারের দিনমজুর ও রিকশাচালকদের মাঝে খাবার বিতরণ করেন শুভসংঘ বন্ধুরা

মৌলভীবাজার জেলার রহমান আলী। বয়োবৃদ্ধ এই মানুষটি দরিদ্রতার সঙ্গে যুদ্ধ করতে করতে পার করে দিয়েছেন জীবনের ৬৫টি বছর। এখনো রিকশার পেডালে পা রেখে জীবিকার খোঁজে বেরিয়ে পড়েন রাস্তায়। দেখেছেন অনেক উত্থান-পতন, কিন্তু ভাগ্য বিধাতা বরাবরই বিমুখ অসহায় এই মানুষটির ওপর।

বিজ্ঞাপন

রিকশা চালিয়ে যা রোজগার করেন, তা দিয়েই কোনো রকমে দিন চলে। বাড়িতে অসুস্থ স্ত্রীর চিকিৎসাটাও করাতে পারেন না ঠিকমতো। রহমান আলীর মতো নূর মিয়া, আবু বকর, হাসান আলীদের জীবনটাও একই সুতায় গাঁথা। জীবনের সঙ্গে যুদ্ধ করে তাঁদের বেঁচে থাকা। সম্প্রতি শুভসংঘ মৌলভীবাজার জেলা শাখার উদ্যোগে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে এসব অসহায় মানুষের মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়।

এ কার্যক্রমে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক জুলফিকার আলী ভুট্টো, শুভসংঘ মৌলভীবাজার জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক তাকবির হোসেন মান্না প্রমুখ। খাবারগুলো পেয়ে এসব অসহায় মানুষের মুখে ফুটে ওঠে তৃপ্তির হাসি। রিকশাচালক রফিক মিয়া বলেন, ‘আপনারা আমাদের অনেক সাহায্য করেন। এর আগে আপনাদের কাছ থেকে কম্বল পেয়েছি। ঈদে পোশাক দিয়েছেন আপনারা। আজ খাবার দিলেন। আল্লাহর কাছে আপনাদের জন্য দোয়া করি। ’

মৌলভীবাজার জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক তাকবির হোসাইন মান্না বলেন, ‘দেশব্যাপী শুভসংঘ অনেক ভালো ভালো কাজ করে যাচ্ছে। তারই ধারাবাহিকতায় সিলেট বিভাগ তথা মৌলভীবাজার জেলায় বিভিন্ন কার্যক্রম অব্যাহত আছে। আজকে আমরা শুভসংঘের পক্ষ থেকে দিনমজুর ও রিকশাচালকের মধ্যে দুপুরের খাবার বিতরণ করার উদ্যোগ নিয়েছি। আশা করি, সামনে আমরা আমাদের এই শুভ কাজের ধারা অব্যাহত রাখব। অনেক মানুষের উপকারে আসতে পারব আমরা। সবার সহযোগিতায় আশা করি আমরা একটি সুন্দর সমাজ প্রতিষ্ঠা করতে পারব। ’

পুরো কার্যক্রমের সমন্বয় করেন মৌলভীবাজার জেলা শাখার কার্যকরী সদস্য আফিকুল ইসলাম রনি। সহযোগিতায় ছিলেন জামাল মিয়া, জ্যোতিষ চন্দ্র প্রমুখ।

 



সাতদিনের সেরা