kalerkantho

বৃহস্পতিবার  । ২৬ চৈত্র ১৪২৬। ৯ এপ্রিল ২০২০। ১৪ শাবান ১৪৪১

বইমেলা

চট্টগ্রামের প্রকাশনা জগতে পেশাদারিত্ব গড়ে উঠেনি!

মুস্তফা নঈম, চট্টগ্রাম   

২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



চট্টগ্রামের প্রকাশনা জগতে পেশাদারিত্ব গড়ে উঠেনি!

চট্টগ্রাম থেকেই শুরু হয়েছিল সৃজনশীল প্রকাশনা সংস্থার যাত্রা। ওই প্রকাশনা থেকে দেশের  প্রতিষ্ঠিত ও উদীয়মান লেখক-কবিদের গল্প, কবিতা, উপন্যাস ও প্রবন্ধের মতো সৃজনশীল লেখার মলাটবদ্ধ পুস্তক প্রকাশিত হত। এসব আজ থেকে প্রায় ৫০ বছর আগের কথা। যা এখন ইতিহাস। ‘বইঘর’ নামের সেই প্রকাশনা ছিল তৎকালীন সময়ের দেশের অন্যতম শীর্ষ প্রকাশনা সংস্থা। পরবর্তীতে রাজধানী ঢাকাকে কেন্দ্র করে ধীরে ধীরে গড়ে ওঠে বহু সৃজনশীল প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান। বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত একুশের গ্রন্থমেলায় মূলত সৃজনশীল প্রকাশকদের বই উৎসবের সঙ্গে যুক্ত হন লেখক সমাজ। সামপ্রতিক সময়ে চট্টগ্রামেও অনেক প্রকাশনা সংস্থা গড়ে উঠেছে। কিন্তু এসব প্রকাশনা সংস্থার মধ্যে সেভাবে পেশাদারিত্ব গড়ে উঠেনি বলে অনেকে মনে করেন।

নগরের এম এ আজিজ স্টেডিয়াম সংলগ্ন জিমনেশিয়াম চত্বরে গত বছর থেকে সম্মিলিত উদ্যোগে হচ্ছে বইমেলা। এবার মেলায় ১৫৮ প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানের ২০৫টি স্টল রয়েছে। এর মধ্যে চট্টগ্রামের প্রকাশনা সংস্থা রয়েছে মাত্র ৪০টি। চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের আয়োজনে এ মেলা চলবে ২৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

প্রায় প্রতিদিন চট্টগ্রাম ও ঢাকার কবি-লেখকদের প্রাণবন্ত আড্ডা বইমেলার অন্যতম আকর্ষণ। সোমবার মেলায় এসেছেন দেশের খ্যাতিমান ছড়ালেখক লুত্ফুর রহমান রিটন। তিনি চুটিয়ে আড্ডা দিয়েছেন চট্টগ্রামের লেখক-কবিদের সঙ্গে।

কবি নিতাই সেন বলেন, ‘প্রথমত চট্টগ্রামের প্রকাশনা সংস্থাগুলোর মধ্যে পেশাদারিত্ব গড়ে উঠেনি। আর ভালো বই প্রকাশে যে ধরনের বিনিয়োগ প্রয়োজন সেই বিনিয়োগও তাঁরা করতে পারছেন না। এ ছাড়া ঢাকার প্রকাশকরা প্রকাশনাকে শিল্প হিসেবে নিয়েছেন, যেটা চট্টগ্রামে হয়ে উঠেনি।’

‘চট্টগ্রামের শিল্পপতি বা ধনাঢ্য ব্যক্তিরা প্রকাশনা জগতে বিনিয়োগ করেন না। তাঁরা জানেন না প্রকাশনা শিল্পে বিনিয়োগ করলে তা ফেরত পাওয়া যায়।’-যোগ করেন নিতাই সেন।

শান্তনু চৌধুরীর দুটি বই : সাংবাদিক শান্তনু চৌধুরীর দুটি বই বেরিয়েছে এবারের একুশে বইমেলায়। একটি সাহিত্য জগতে সর্বাধিক পরিচিত তিন ভাই হুমায়ূন আহমেদ, মুহম্মদ জাফর ইকবাল ও আহসান হাবীবকে নিয়ে ‘বড় মেজ ও ছোট’। বইটি প্রকাশ করেছে অন্বেষা প্রকাশন। অপর বইটি বেশ সময়োপযোগী। উৎস প্রকাশন থেকে প্রকাশ হওয়া বইটির নাম ‘মোবাইল জার্নালিজম’।

শান্তনু চৌধুরী প্রায় দুই দশক ধরে সাংবাদিকতা করছেন। বর্তমানে কাজ করছেন ২৪ ঘণ্টা সংবাদভিত্তিক চ্যানেল সময় টেলিভিশনে বার্তা সম্পাদক হিসেবে। সমান তালে লিখে চলেছেন গল্প, কবিতা ও উপন্যাস। প্রকাশিত বই ১৫টি। চট্টগ্রামের সাতকানিয়ার উত্তর ঢেমশা গ্রামের সন্তান শান্তনু প্রাতিষ্ঠানিক পাঠ শেষ করেছেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় থেকে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা