kalerkantho

সোমবার  । ১৬ চৈত্র ১৪২৬। ৩০ মার্চ ২০২০। ৪ শাবান ১৪৪১

শেষ মুহূর্তে ইসির নির্দেশনা

প্রচারসামগ্রী অপসারণের কথা জানেন না সম্ভাব্য প্রার্থীরা

রাশেদুল তুষার, চট্টগ্রাম   

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



শেষ মুহূর্তে ইসির নির্দেশনা

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার অনেক আগে থেকে সম্ভাব্য প্রার্থীদের পরিচিতিমূলক পোস্টার, ব্যানার, ফেস্টুনে ভরে যায় নগর। এবার এসব নির্বাচনী প্রচারসামগ্রী সরাতে কঠোর হয়েছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। ইতোমধ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সিটি করপোরেশনকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। তবে ২৩ ফেব্রুয়ারি ইস্যু হওয়া নির্দেশনামূলক চিঠিতে প্রচারসামগ্রী সরাতে ২৪ ফেব্রুয়ারি রাত ১২টা পর্যন্ত অর্থাৎ মাত্র একদিন সময় দেওয়া হয়। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের নিজ খরচে সেসব সামগ্রী তুলে না নিলে চূড়ান্ত মনোনয়ন পাওয়ার পর অভিযুক্ত প্রার্থীদের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশন আইনে ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে। অথচ অপসারণের নির্দেশনার বিষয়টি জানেনই না অধিকাংশ সম্ভাব্য প্রার্থী। 

জানা গেছে, নগরের প্রত্যেকটি ওয়ার্ডে সম্ভাব্য কাউন্সিলর, সংরক্ষিত কাউন্সিলর ও মেয়র পদে সম্ভাব্য প্রার্থীরা আসন্ন নির্বাচনে নিজেদের উপস্থিতি জানান দিয়ে শুভেচ্ছা বাণী, দোয়াপ্রার্থী সম্বলিত ব্যানার, পোস্টার, দেয়ালিকা, বিলবোর্ড, তোরণ নির্মাণ করেছেন। আবার এঁদের পক্ষে সমর্থকরাও পোস্টার ছাপিয়েছেন। এতে শহরের সৌন্দর্য নষ্ট হচ্ছে বলে অভিযোগ রয়েছে। তাছাড়া ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নেতিবাচক ও পরিবেশ বিনষ্ট হওয়ায় নির্বাচন কমিশন এবার চসিক নির্বাচনে পোস্টারিং ও মাইকিংয়ের বিষয়টি কঠোরভাবে নিয়ন্ত্রণ করতে চায়।

প্রসঙ্গত, চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন নির্বাচনের ভোটগ্রহণ আগামী ২৯ মার্চ। এবারই প্রথমবারের মতো ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণ হবে। তফসিল অনুযায়ী, মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় আগামী বৃহস্পতিবার। মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাইয়ের তারিখ ১ মার্চ। প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষদিন ৮ মার্চ। এ ছাড়া ৯ মার্চ প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে। মূলত সেদিন থেকে প্রার্থীরা প্রকাশ্যে প্রচার শুরু করতে পারবেন।

সিটি করপোরেশনের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাকে প্রচারসামগ্রী অপসারণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করে রিটার্নিং অফিসারকে অবহিত করতে বলা হলেও সময়সীমার বিষয়টি অবহিত নন সম্ভাব্য প্রার্থীর অনেকে।

এ ব্যাপারে ১০ নম্বর সংরক্ষিত ওয়ার্ডে সম্ভাব্য কাউন্সিলর প্রার্থী রাধা রানী দেবীর দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে তিনি এ প্রতিবেদক থেকে প্রথম এমন নির্দেশনার কথা শুনেছেন বলে জানান। তবে নির্দেশনা না পেলেও তিনি নিজ উদ্যোগে রাতের মধ্যে যতটুকু সম্ভব পোস্টার ও ব্যানার অপসারণ করার চেষ্টা করবেন বলে জানান।

চট্টগ্রাম সিটি নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার ও আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ হাসানুজ্জামান বলেন, ‘নির্ধারিত সময়ের মধ্যে এসব অপসারণ করা না হলে মনোনয়ন চূড়ান্ত হওয়ার পর অভিযুক্ত প্রার্থীর বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশন আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা