kalerkantho

বুধবার । ৬ ফাল্গুন ১৪২৬ । ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪১

কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে পাঁচ সন্তানের বাবা গ্রেপ্তার

মিরসরাই (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

২২ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



প্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে গ্রেপ্তার হয়েছেন পাঁচ সন্তানের বাবা রমণী মোহন দাস (৬৫)। সোমবার রাতে মিরসরাই উপজেলার বড়তাকিয়া এলাকা থেকে তাঁকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

পুলিশ ও কিশোরীর পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, রমণী মোহন দাস থাকেন মিরসরাই উপজেলার মঘাদিয়া ইউনিয়নের পশ্চিম মঘাদিয়া গ্রামে। ওই কিশোরী এবং তার মা গ্রামের বাড়ি বাড়ি কাজ করে কোনোমতে সংসার চালান। তাঁদের অসহায়ত্বের সুযোগে একাধিকবার ওই কিশোরীকে ধর্ষণ করেন রমণী মোহন। এতে কিশোরী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়লে বিষয়টি জানাজানি হয়। গত সোমবার বিকেলে কিশোরীর মা বাদী হয়ে মিরসরাই থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন আইনে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার সূত্র ধরে পুলিশ রমণীকে স্থানীয় বড়তাকিয়া বাজার এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে। পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রমণী মোহন ধর্ষণের বিষয়টি স্বীকার করেছেন। গতকাল মঙ্গলবার ধর্ষিতা কিশোরীকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানান মামলার তদন্ত কর্মকর্তা মিরসরাই থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাহফুজুল হক।

মিরসরাই থানার ওসি (তদন্ত) বিপুল দেবনাথ কালের কণ্ঠকে জানান, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে ধর্ষণের অভিযোগ স্বীকার করেছেন রমণী মোহন। তিনি চার ছেলে ও এক কন্যার জনক। ধর্ষণের ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর রমণী মোহন গ্রেপ্তার এড়াতে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। পরে মিরসরাই থানার ওসি জাহিদুল কবিরের নেতৃত্বে তাঁকে বড়তাকিয়া বাজার থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাঁকে আদালতে পাঠানো হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা