kalerkantho

বুধবার । ৬ ফাল্গুন ১৪২৬ । ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ২৪ জমাদিউস সানি ১৪৪১

চবি ছাত্রীকে মারধর

শিক্ষার্থীদের প্রতিবাদ, নিরাপত্তায় পাঁচ দফা

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি   

২২ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



শিক্ষার্থীদের প্রতিবাদ, নিরাপত্তায় পাঁচ দফা

কটেজ মালিকের হাতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী লাঞ্ছিত হওয়ার প্রতিবাদে গতকাল শিক্ষার্থীরা ক্যাম্পাসে মৌন মিছিল বের করে। ছবি : কালের কণ্ঠ

কটেজ মালিক কর্তৃক চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) ছাত্রীকে মারধরের প্রতিবাদে মুখে কালো কাপড় বেঁধে মানববন্ধন ও সমাবেশ করেছেন শিক্ষার্থীরা। এ সময় শরীরে প্রতীকী ব্যান্ডেজ লাগিয়ে দুই মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। মঙ্গলবার বেলা ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ মিনার চত্বরে এ কর্মসূচি পালিত হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিটি ছাত্রীর সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। শুধু মুখের আশ্বাসে নয়, দৃশ্যমান ব্যবস্থা নিতে হবে। আজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীর সঙ্গে এমন মারধরের ঘটনা ঘটলে আন্দোলনে হয়তো অনেক শিক্ষার্থীর সাড়া পাওয়া যেত। আমাদের ক্যামপাসের শিক্ষার্থীদের প্রতিবাদ শুধু ফেসবুকের কমেন্টে সীমাবদ্ধ থাকে, যা সত্যিই দুঃখজনক।

নাইমুরের রহমানের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য দেন ফারজানা আমিন সোনিয়া, মো. শিপন, মুনাবির ইসলাম প্রমুখ। মানববন্ধন শেষে শহীদ মিনার থেকে মৌন মিছিল করে প্রক্টর অফিসে গিয়ে স্মারকলিপি দেন শিক্ষার্থীরা। এতে অভিযুক্ত ব্যক্তিকে আগামী তিন দিনের মধ্যে গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় আনা এবং নারী শিক্ষার্থীদের আবাসনের সমস্যা শতভাগ দূর করাসহ পাঁচ দাবি জানানো হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর এস এম মনিরুল হাসান বলেন, ‘ঘটনা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাইরের। অভিযোগটি ঘটনার দিনই পুলিশের কাছে দেওয়া হয়েছে। পুলিশ অভিযোগ গ্রহণ করেছে এবং বিষয়টি তারা দেখছে।’

উল্লেখ্য, গত সোমবার বিশ্ববিদ্যালয়ের দক্ষিণ ক্যামপাসে ‘নিরিবিলি হাউজ’ নামে একটি কটেজে এক ছাত্রীকে মারধর করেন বাড়িওয়ালা নুরুল ইসলাম। ওই ছাত্রী আগে ওই বাসায় থাকতেন। তবে ডিসেম্বর মাসে ওই বাসা ছেড়ে দেন। জামানত বাবদ নেওয়া দুই হাজার টাকা ছাত্রীকে দেওয়ার কথা ছিল। ওই দিন টাকা চাইতে গেলে বিষয়টি অস্বীকার করেন বাড়িওয়ালা।

এর পর কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে ওই ছাত্রীকে মারধর করেন ওই বাড়ির মালিক। এ সময় কামড় দিয়ে জখমও করা হয়। পরে ওই ছাত্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিক্যাল থেকে প্রাথমিক চিকিৎসা নেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা