kalerkantho

মঙ্গলবার । ২৮ জানুয়ারি ২০২০। ১৪ মাঘ ১৪২৬। ২ জমাদিউস সানি ১৪৪১     

‘মংসাজাই চৌধুরী ছিলেন মারমাদের পথপ্রদর্শক’

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি   

১৪ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



মংসাজাই চৌধুরী ছিলেন মারমা সমাজের অন্যতম পথ প্রদর্শক। মংসাজাই চৌধুরী, চাবাই মগসহ কয়েকজন মিলে মারমা সমাজের শিক্ষা, সাহিত্য, সংস্কৃতি বিকাশে কাজ করতেন। তিনি সবসময় মারমা সমাজকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার স্বপ্ন দেখাতেন। সমাজ নিয়ে তাঁর স্বপ্নগুলো বাস্তবায়ন করতে দেয়নি একটি কুচক্রীমহল। সেই মহলটি তাঁকে ৩১ বছর আগে ১৯৮৯ সালে নিজবাড়ি থেকে ধরে নিয়ে যায়। এতদিনেও তাঁর সন্ধান মেলেনি।

গতকাল সোমবার মংসাজাই চৌধুরীর ৩১তম অন্তর্ধান দিবসের আলোচনায় বক্তারা এসব মন্তব্য করেন।

মংসাজাই চৌধুরী ছিলেন খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরীর বাবা। তিনি পার্বত্য চট্টগ্রামের শান্তি প্রক্রিয়ায় অন্যতম উদ্যোক্তা। মারমা উন্নয়ন সংসদের সহসভাপতি ছিলেন।

মারমা উন্নয়ন সংসদ কমিউনিটি সেন্টারে মংসাজাই চৌধুরী ৩১তম অন্তর্ধান দিবসের আলোচনায় সভাপতিত্ব করেন কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মংপ্রু চৌধুরী। আলোচনায় অংশ নেন খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী, জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান চাইথোঅং মারমা, জেলা পরিষদ সদস্য মংক্যচিং চৌধুরী, খগেশ্বর ত্রিপুরা, রেম্রাচাই চৌধুরী, মারমা উন্নয়ন সংসদ সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ সদস্য মংসুইপ্রু চৌধুরী অপু, মারমা উন্নয়ন সংসদের শিক্ষা ও সাহিত্য সম্পাদক চিংলামং মারমা, প্রয়াত চাবাই মগের স্ত্রী রেদামা চৌধুরী।

আলোচনাসভা শেষে দরিদ্র ও শীতার্ত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করা হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা