kalerkantho

মঙ্গলবার । ১০ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১২ রবিউস সানি     

পুলিশের তাড়া খেয়ে শঙ্খনদে ঝাঁপ, ২৯ ঘণ্টা পর লাশ উদ্ধার

চন্দনাইশ (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পুলিশের তাড়া খেয়ে শঙ্খনদে ঝাঁপ দেওয়ার ২৯ ঘণ্টা পর সাবের আহমদ (৫৫) নামে নিখোঁজ ব্যক্তির লাশ ভেসে উঠেছে। সোমবার রাত আড়াইটার দিকে খবর পেয়ে দোহাজারী তদন্তকেন্দ্রের পুলিশ লাশ উদ্ধার করে। সাবের চন্দনাইশ উপজেলার দোহাজারী পৌরসভার পূর্ব দোহাজারী এলাকার মৃত নজির আহমদের ছেলে।

জানা যায়, রবিবার রাতে দোহাজারী তদন্তকেন্দ্রের পুলিশ দল দোহাজারী পৌরসভার বার্মা কলোনিতে আসামি গ্রেপ্তারে অভিযান চালায়। এ সময় সাবের গ্রেপ্তার এড়াতে শঙ্খনদে ঝাঁপ দেন। এর পর তাঁর কোনো খোঁজ না পাওয়ায় পরিবারের লোকজন সোমবার সন্ধ্যা পর্যন্ত শঙ্খনদে খোঁজাখুঁজি করেন। খবর পেয়ে দুপুর থেকে ফায়ার সার্ভিসের একদল ডুবুরিও তাঁকে খোঁজাখুঁজি করে।

দোহাজারী তদন্তকেন্দ্রের ইনচার্জ মনিরুল ইসলাম ভূঁইয়া বলেন, ‘শঙ্খে লাশ ভাসার সংবাদ পেয়ে সোমবার রাতে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে মঙ্গলবার সকালে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠায়।’

জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘অপরাধপ্রবণ এলাকা দোহাজারী বার্মা কলোনিতে অভিযানের সময় কেউ নদীতে ঝাঁপ দেওয়ার বিষয়ে আমরা জানতাম না। পরে এলাকাবাসীর কাছ থেকে জানতে পারি গাঁজা সাবের নামে পরিচিত ওই ব্যক্তি নদীতে ঝাঁপ দিয়েছেন। তাঁর বিরুদ্ধে একটি মাদক ও একটি চুরি মামলায় ওয়ারেন্ট রয়েছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা