kalerkantho

শুক্রবার । ২০ চৈত্র ১৪২৬। ৩ এপ্রিল ২০২০। ৮ শাবান ১৪৪১

বোয়ালখালী

লোকালয়ে হাতির পাল, আতঙ্ক তাড়াতে গিয়ে বন কর্মকর্তা আহত

বোয়ালখালী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

২৪ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কর্ণফুলী নদীর কূল ঘেঁষা বোয়ালখালী উপজেলা। নদী, সবুজ বন-পাহাড় মিলিয়ে মনোরম প্রাকৃতিক বৈচিত্র্যময় এ উপজেলা। এখানে আছে কড়লডেঙা ও জ্যৈষ্ঠপুরা পাহাড়। এসব পাহাড় হরেক রকমের বন্য প্রাণীর আবাসস্থল। কালের বিবর্তনে এসব প্রাণীর নিরাপদ আবাস ও খাদ্যের উত্স মানুষ নষ্ট করে ফেলায় এরা মাঝে মাঝে খাবারের খোঁজে নেমে আসে লোকালয়ে। জনমনে সৃষ্টি হয় আতঙ্ক, ক্ষতিগ্রস্ত হয় জানমাল।

এভাবেই খাবারের খোঁজে গতকাল শনিবার সকালে উপজেলার মধ্যম কধুরখীল দারোগা বাড়ির দরগা এলাকায় একটি বন্য হাতির পাল লোকালয়ে হানা দেয়। খবরটি ছড়িয়ে পড়লে হাতির পাল দেখতে উত্সুক জনতার ঢল নামে।

প্রত্যক্ষদর্শী স্থানীয় বাসিন্দা মো. কুতুব উদ্দিন জানান, শনিবার মসজিদে ফজরের নামাজ পড়তে গেলে পার্শ্ববর্তী  হযরত মজুম সর্দার (রহ.) এর মাজার শরীফের পেছনে একটি হাতির পাল দেখা যায়। ওই দলে ৪টি বাচ্চা ও ৩টি বড় হাতি ছিল। হাতিগুলো দেখার পর থেকে এলাকাবাসীর মধ্যে আতঙ্কের সৃষ্টি হয়। ভোর থেকে হাতির পাল গাছপালা ও ক্ষেতের ফসলের ব্যাপক ক্ষতি করেছে। এক পর্যায়ে জনসমাগম বেড়ে যাওয়ার পর এরা জঙ্গলের ভেতর ঢোকে যায়।

খবর পেয়ে হাতি তাড়াতে পুলিশ, উপজেলা প্রশাসন, ফায়ার সার্ভিস ও বন বিভাগের কর্মীরা ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। এ সময় হাতির তাড়া খেয়ে বন বিভাগের এক কর্মকর্তা আহত হন। উত্সুক জনতার ভিড় সামলাতে প্রশাসনকে হিমশিম খেতে হয়। সর্বশেষ খবরে জানা গেছে, হাতির পালটি ওই জঙ্গলে অবস্থান করছে। এরা আবার লোকালয়ে হানা দিতে পারে বলে আশঙ্কা রয়েছে।

বোয়ালখালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ নেয়ামত উল্লাহ বলেন, ‘হাতির পাল যাতে এলাকার বাড়িঘর ও জানমালের ক্ষতি করতে না পারে সে ব্যাপারে প্রশাসন সতর্ক রয়েছে। পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও বন বিভাগ হাতিগুলো তাড়াতে যৌথভাবে কাজ করছে।’

চট্টগ্রাম বন বিভাগ পটিয়া রেঞ্জ বিট কর্মকর্তা মো. তানবীর শরীফ চৌধুরী বলেন, ‘চট্টগ্রাম বন বিভাগের বিভিন্ন ইউনিটের কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে এসে বন্য প্রাণীগুলোকে সরিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করছেন। কিন্তু উত্সুক জনতার ভিড়ের কারণে কাজ করতে বাধার সৃষ্টি হচ্ছে।’ হাতির পালের তাড়া খেয়ে বন বিভাগের এমআরটিপি কর্মকর্তা মো. হাশেম আহত হয়েছেন বলে তিনি জানান।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা