kalerkantho

শুক্রবার । ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৮ রবিউস সানি ১৪৪১     

জন্ম শতবর্ষে শ্রদ্ধাঞ্জলি অনুষ্ঠানে বক্তারা

পুঁথি সংগ্রহে সাত্তার চৌধুরীর অবদান অসামান্য

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১৭ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



পুঁথি সংগ্রহে সাত্তার চৌধুরীর অবদান অসামান্য

পুঁথি গবেষক ও সংগ্রাহক আবদুস সাত্তার চৌধুরীর জন্ম শতবর্ষ উপলক্ষে চট্টগ্রাম একাডেমির শ্রদ্ধাঞ্জলি অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন একুশে পদকপ্রাপ্ত শিক্ষাবিদ ড. মাহবুবুল হক। ছবি : কালের কণ্ঠ

পুঁথি ও লোকসাহিত্য সংগ্রহের ক্ষেত্রে আবদুস সাত্তার চৌধুরীর অবদান অসামান্য বলে মন্তব্য করেছেন একুশে পদকপ্রাপ্ত শিক্ষাবিদ ও প্রাবন্ধিক ড. মাহবুবুল হক। তিনি বলেন, ‘আমাদের জাতীয় ঐতিহ্যের লালন ও তার পুনরুদ্ধারে আবদুস সাত্তার চৌধুরীর শ্রম ও সাধনা সার্থক হয়েছে। আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ ও আশুতোষ চৌধুরীর পরে সাত্তার চৌধুরী উল্লেখযোগ্য কাজ সম্পাদন করেছেন।’

শুক্রবার পুঁথি গবেষক ও সংগ্রাহক আবদুস সাত্তার চৌধুরীর জন্ম শতবর্ষ উপলক্ষে চট্টগ্রাম একাডেমির শ্রদ্ধাঞ্জলি অনুষ্ঠানে ড. মাহবুবুল হক প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন। সাহিত্যিক ও সাংবাদিক রাশেদ রউফের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আলোচক ছিলেন ড. আনোয়ারা আলম, অধ্যাপক ড. ইলু ইলিয়াস, শিল্পশৈলী সম্পাদক নেছার আহমদ, মরহুমের ছেলে পুঁথি গবেষক

মুহাম্মদ ইসহাক চৌধুরী, অধ্যাপক অজিত কুমার মিত্র, ব্যাংকার ফারুক খান চৌধুরী প্রমুখ।

একাডেমির মহাপরিচালক অরুণ শীলের সঞ্চালনায় সাত্তার চৌধুরীর প্রতি শ্রদ্ধা জানান সাবেক মহাপরিচালক কবি জিন্নাহ চৌধুরী, পরিচালক গল্পকার দীপক বড়ুয়া, গল্পকার সাংবাদিক বিপুল বড়ুয়া, সংগঠক মো. জাহাঙ্গীর মিঞা, লেখক এস এম আবদুল আজিজ, অধ্যাপক সুপ্রতিম বড়ুয়া, গল্পকার মিলন বণিক, কবি আবুল কালাম বেলাল প্রমুখ। অনুষ্ঠান উপলক্ষে দীপক বড়ুয়ার সম্পাদনায় ‘শ্রদ্ধাঞ্জলি’ শীর্ষক একটি সংকলন প্রকাশিত হয়।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা