kalerkantho

শুক্রবার । ০৬ ডিসেম্বর ২০১৯। ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ৮ রবিউস সানি ১৪৪১     

রাউজান

আমনের বাম্পার ফলন, ধান কাটা শুরু

জাহেদুল আলম, রাউজান (চট্টগ্রাম)   

১৭ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আমনের বাম্পার ফলন, ধান কাটা শুরু

রাউজানের হলদিয়ায় ক্ষেতে পাকা আমন। ছবি : কালের কণ্ঠ

রাউজানের উঁচু এলাকাগুলোতে আমন ধান কেটে ঘরে তোলার কাজ শুরু হয়েছে। তবে নিচু এলাকার ধানে পুরোপুরি হলদে রং আসেনি এখনো।

উপজেলা কৃষি অফিস ও স্থানীয় কৃষকদের তথ্যমতে, উপজেলার উঁচু অঞ্চল খ্যাত ডাবুয়া, হলদিয়া, কদলপুর ইউনিয়ন এবং পৌরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ড, পৌরসভার ৭, ৮, ৬ ও ৫ নম্বরসহ বিভিন্ন এলাকায় পুরোদমে শুরু হয়েছে ধানকাটা, মাড়াই ও শুকানোর কাজ। এবার রাউজানে আমনের বাম্পার ফলন হয়েছে। সামপ্রতিক ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ এর প্রভাব তেমন একটা পড়েনি আমন ক্ষেতে।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তারা জানান, বৃষ্টি ও বাতাসে কিছু এলাকায় কাঁচা-পাকা ধান মাটিতে লুটিয়ে পড়লেও ক্ষতির পরিমাণ খুব বেশি হবে না। এ পর্যন্ত সার্বিকভাবে আমন ফসল উৎপাদনের অনুকূল পরিবেশ রয়েছে। বিশেষ করে অতিবৃষ্টিপাত-বন্যার পর বীজ, চারা রোপণ, সময়মতো বৃষ্টির পানি পাওয়া, পোকামাকড়ের প্রতি কৃষকদের সচেতনতা, রোগ-বালাই প্রতিরোধে কার্যকর পদক্ষেপ এবং কৃষি অফিসের মাঠকর্মীদের এলাকায় এলাকায় যোগাযোগসহ নানা কারণে এবার রাউজানে আমনের বাম্পার ফলন হয়েছে। তবে মাঠ থেকে ধান ঘরে তুললেও কতটুকু ন্যায্যমূল্য মিলবে-সে শঙ্কায় ভুগছেন উপজেলার কৃষকরা।

তবে তাঁদের জন্য আশার কথা বলছেন কৃষি কর্মকর্তারা। তাঁরা বলেন, সরকার আমনের ধান-চাল ক্রয় করবে। এ জন্য উপজেলার কৃষকদের তালিকা প্রায় প্রস্তুত করা হয়েছে।

উপজেলা কৃষি অফিসের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা সঞ্জীব কুমার সুশীল বলেন, ‘ইতোমধ্যে উপজেলার ২০-৩০ শতাংশ আমনের ফসল কাটা হয়েছে। বাকি ৭০-৮০ শতাংশ ফসল কাটা হচ্ছে।’ তিনি জানান, এবার আমনের লক্ষ্যমাত্রা ছিল ১১২৭৬ হেক্টর। চাষ হয়েছে ১১৪৮০ হেক্টর জমিতে। জমিতে যে আকারে ফলন এসেছে, তাতে গত বছরের চাইতে এবার ফসল উৎপাদন বেশি হবে। এতে আমনের লক্ষ্যমাত্রা অর্জিত হবে।

তাঁর মতে, রাউজানে আমন ফসলে ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের প্রভাব কিছুটা পড়লেও উল্লেখযোগ্য নয়।

কদলপুর এলাকার রহিম মিয়া নামে এক কৃষক বলেন, ‘বোরো চাষ করে লাভবান হইনি। আমন চাষ করে উৎপাদনের সঙ্গে খরচ ওঠবে কিনা, মুনাফা হবে কিনা তা নিয়ে শঙ্কায় আছি।’

এ প্রসঙ্গে উপজেলা কৃষি অফিস জানায়, সরকার এবার আমন ধান-চাল কেনার জন্য কৃষকদের তালিকা তৈরি করার নির্দেশনা দিয়েছে। সে হিসেবে রাউজানে তালিকা প্রায় প্রস্তুত করে ফেলা হয়েছে।

জানা যায়, সরকার এবার ২৬ টাকা দরে আমন ধান ও ৩৪ টাকা করে চাল কিনবে।

উপজেলা কৃষি উদ্ভিদ সংরক্ষণ অফিসার কাজী আতিকুর রহমান বলেন, ‘বুলবুলের প্রভাবে মাটিতে নুয়ে পড়া ফসলের কিছু ক্ষতি হবে। তবে এবার অন্যবারের চাইতে উপজেলায় আমনের ফলন ভালো হয়েছে।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা