kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ১৪ নভেম্বর ২০১৯। ২৯ কার্তিক ১৪২৬। ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

দৃষ্টি প্রতিবন্ধীর সঙ্গে পাঠাও চালকের প্রতারণা

নিজ্স্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২৪ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দৃষ্টি প্রতিবন্ধীর সঙ্গে পাঠাও চালকের প্রতারণা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী রবিউল ইসলামের (ডানে) মালামাল পাঠাওচালকের (মোটরসাইকেলে বসা) আত্মসাতের বিষয়টি সিসি টিভির ফুটেজ দেখে নিশ্চিত হয়েছে পুলিশ। ছবি : সংগৃহীত

দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীর মালামাল আত্মসাৎ করেছেন এক পাঠাওচালক। গত মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে নগরের ডবলমুরিং থানার ফায়ার সার্ভিস অফিসের সামনে এ ঘটনা ঘটে। সিসি (ক্লোজ সার্কিট) টিভির ফুটেজ দেখে আত্মসাতের বিষয়টি নিশ্চিত হয়েছে পুলিশ। ভুক্তভোগী রবিউল ইসলাম রুবেল ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক সম্পর্ক বিভাগের চতুর্থ সেমিস্টারের শিক্ষার্থী।

মঙ্গলবার রাতে রবিউল পাঠাও এর মোটরসাইকেলে কালুরঘাট ইস্পাহানী জেডি রোড থেকে ডবলমুরিং থানার ফায়ার সার্ভিসের সামনে আসেন। অসাবধানতাবশত মোটরসাইকেলের ক্যারিয়ারে একটি শপিংব্যাগে পাওয়ার ব্যাংক, হেডফোন, চার্জার ও মানিব্যাগে  তিন হাজার টাকা রেখে রবিউল নেমে পড়েন। তাত্ক্ষণিক পাঠাওচালক ঘটনাস্থল ত্যাগ করেন। কিছুক্ষণ পর ব্যাগ ফেলে আসার বিষয়টি মনে পড়লে ওই চালককে ফোন দেন রবিউল। তখন চালক ০১৮২২৯২২০৩ নম্বরের ফোনটি বন্ধ করে রাখেন। এর পর পাঠাও কর্তৃপক্ষকে বিষয়টি জানানো হলে চালক মালামালের বিষয়টি অস্বীকার করেন। এর পর ভুক্তভোগী পাঠাও চালকের বিরুদ্ধে ডবলমুরিং থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন।

ভুক্তভোগী রবিউল কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘থানায় অভিযোগ করার পর পুলিশ সিসি টিভির ফুটেজ দেখে পাঠাওচালককে শনাক্ত করেছে। পরে পাঠাও কর্তৃপক্ষ প্রতারণাকারীর সঙ্গে আলাপ করলেও মালামাল ফিরে পাইনি।’

এ ব্যাপারে কথা বলতে বুধবার সন্ধ্যায় পাঠাও চট্টগ্রাম অফিসে যোগাযোগ করা হলে কেউ ফোন ধরেনি।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা