kalerkantho

শুক্রবার । ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯। ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৫ রবিউস সানি          

সংবাদের প্রতিবাদ

১৯ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গত ১৭ অক্টোবর কালের কণ্ঠে দ্বিতীয় রাজধানী পাতায় ‘শুদ্ধি অভিযানের ভয় তাড়া করছে চট্টগ্রামের যুবলীগ-ছাত্রলীগ নেতাদের, আলোচিত অনেকের বিদেশ পাড়ি!’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ জানিয়েছেন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের ২৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ জাবেদ এবং ২৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. আবদুল কাদের।

অ্যাডভোকেট উৎপল দাসের সই করা প্রতিবাদলিপিতে বলা হয়, ‘২৩নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ জাবেদকে জড়িয়ে যে সংবাদ পরিবেশন করা হয়েছে তা মিথ্যা ও ভিত্তিহীন। আমার মক্কেলকে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার অপ্রপ্রয়াসের বিরুদ্ধে আমার মক্কেল মোহাম্মদ জাবেদ কর্তৃক তীব্র প্রতিবাদ জানানো হলো।’

প্রতিবাদলিপিতে আইনজীবী আরো বলেন, ‘আমার মক্কেল একজন স্বনামধন্য ব্যবসায়ী এবং সম্ভ্রান্ত পরিবারের সন্তান। তিনি একজন পরিচ্ছন্ন রাজনীতিবিদ। তিনি মিষ্টি মেলা লি., কোয়ালিটি ফুট প্রডাক্টস, আরব আমিরাতে বনফুল ফাস্ট ফুড, জে এম ট্রেডিং লি., কর্ণফুলী ওয়েল সাপলাইয়ার্স লি. এবং দীন মোহাম্মদ কনভেনশন হলসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের মালিক। এসব প্রতিষ্ঠানের হিসাব-নিকাশের যাবতীয় বিষয় নিরীক্ষণের ভিত্তিতে অর্জিত সম্পদের হিসাব আয়কর বিভাগে দাখিল করা আছে। তিনি কোনো অবৈধ সম্পদের মালিক নন। মোহাম্মদ জাবেদের বাবা-মা মার্কিন নাগরিক হওয়ার সূত্রে তিনি কানাডায় অবস্থান করেন।’ তিনি কোনো অবৈধ ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত নন বলে দাবি করেন অ্যাডভোকেট উৎপল দাস।

এদিকে ২৮নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো. আবদুল কাদের তাঁর প্রতিবাদলিপিতে বলেছেন, ‘প্রকাশিত সংবাদে আমাকে জড়িয়ে টেন্ডারবাজি, চাঁদাবাজিসহ জমি ও ফ্যাট দখলের যে অভিযোগ করা হয়েছে তা ভিত্তিহীন ও মিথ্যা।’ এ ছাড়া কিশোর গ্যাংয়ের নেতৃত্ব দেওয়ার বিষয়টিও কাল্পনিক বলে দাবি করেছেন তিনি।  প্রতিবাদলিপিতে তিনি বলেন, ‘একসময় বিএনপি ও জামায়াতের শক্ত ঘাঁটি হিসেবে পরিচিত পাঠানটুলী ওয়ার্ডকে সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজমুক্ত করতে আমার প্রচেষ্টায় এলাকার মানুষের আন্তরিত অংশগ্রহণের কারণে এখানকার ব্যবসায়ীসমাজ এখন নিরাপদ ও নির্ভয়ে ব্যবসা-বাণিজ্য চালিয়ে যাচ্ছেন।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা