kalerkantho

বুধবার । ১৩ নভেম্বর ২০১৯। ২৮ কার্তিক ১৪২৬। ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

চট্টগ্রাম নগর তাঁতী লীগ

দেড় মাস আগেই সম্মেলন

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১৯ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন তাঁতী লীগের চট্টগ্রাম মহানগর শাখার আহ্বায়ক কমিটির মেয়াদ এক বছর। মেয়াদ শেষ হওয়ার দেড় মাস আগেই আজ শনিবার সম্মেলন হচ্ছে। বিষয়টিকে ইতিবাচক হিসেবে দেখছে রাজনৈতিক মহল।

কেন্দ্রের নির্দেশনা অনুযায়ী ইতিমধ্যে সম্মেলনকে সামনে রেখে তাঁতী লীগ নগরের ১৫টি সাংগঠনিক থানার মধ্যে ১৩টিতেই আহ্বায়ক কমিটি করেছে। অপ্রীতিকর ঘটনার কারণে অন্য দুটি থানায় কমিটি করা হয়নি। তবে নগর সম্মেলনের জন্য ওই দুই থানা থেকে ১০ জন করে কাউন্সিলর মনোনীত করা হয়েছে। নগর কমিটির সম্মেলনের পর দ্রুত সময়ের মধ্যে থানা কমিটিগুলোর সম্মেলন করা হবে বলে জানিয়েছেন নগর তাঁতী লীগের নেতারা।

গত বছরের ৪ ডিসেম্বর চট্টগ্রাম মহানগর তাঁতী লীগের ৬১ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি করা হয়। আহ্বায়ক করা হয় নগরের বেসরকারি ওমরগনি এমইএস কলেজ ছাত্রসংসদের সাবেক প্রো-ভিপি নুরুল আমিন মানিককে। আর সদস্যসচিব করা হয় কোতোয়ালি থানা যুবলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক রত্নাকর দাশ টুনুকে।

সংগঠন সূত্রে জানা গেছে, নগরের জেএমসেন হল মাঠে আজ সকাল ১১টায় সম্মেলন শুরু হবে। সম্মেলনের প্রধান অতিথি আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক, তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। অনুষ্ঠানের উদ্বোধক বাংলাদেশ তাঁতী লীগের সভাপতি মো. শওকত আলী। প্রধান বক্তা হিসেবে থাকবেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক খগেন্দ্র চন্দ্র দেবনাথ। সম্মেলনে বিশেষ অতিথি হিসেবে থাকবেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, সিটি মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন ও নগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী।

অভিযোগ উঠেছে, তাঁতী লীগের চট্টগ্রাম নগর আহ্বায়ক কমিটিতে সন্ত্রাস, মাদক-ইয়াবা ও ক্যাসিনো কারবারের সঙ্গে জড়িত চার-পাঁচজন রয়েছেন। তাঁরা আজকের সম্মেলনে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির পাঁয়তারা করছেন বলে সংগঠনের নেতারা জানান। এ কারণে সম্মেলনস্থল ঘিরে প্রায় দেড় ডজন ক্লোজ সার্কিট (সিসি) টিভি ক্যামেরা লাগানো হয়েছে। থাকছে স্বেচ্ছাসেবক দল। এ ছাড়া বিষয়টি পুলিশ প্রশাসনকে অবহিত করা হয়েছে বলে নেতারা জানান।

নগর তাঁতী লীগের আহ্বায়ক নুরুল আমিন মানিক ও সদস্যসচিব রত্নাকর দাশ টুনু গতকাল শুক্রবার বিকেলে কালের কণ্ঠকে বলেন, তাঁতী লীগে কোনো গ্রুপিং নেই। তাঁদের অবস্থান সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি, মাদকের বিরুদ্ধে। সাড়ে ১০ মাসে সংগঠনকে এমনভাবে গোছানো হয়েছে যাতে কোনো অপরাধী ঢুকতে না পারে। সম্মেলনের মধ্য দিয়ে দক্ষ, ত্যাগী ও যোগ্য নেতৃত্ব আসবে বলে তাঁরা আশা প্রকাশ করেছেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা