kalerkantho

সোমবার । ১৮ নভেম্বর ২০১৯। ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২০ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

অপহরণ ও ধর্ষণের দায়ে একজনের যাবজ্জীবন

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১৭ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বাঁশখালী উপজেলার এক মাদরাসাছাত্রীকে অপহরণ ও ধর্ষণের দায়ে মাহমুদুর রহমান হায়দার নামে এক ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। গতকাল বুধবার চট্টগ্রামের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল-১ এর বিচারক মশিউর রহমান খান এই রায় ঘোষণা করেন। দণ্ডিত মাহমুদুর কক্সবাজার জেলার পেকুয়া উপজেলার শীলখালী গ্রামের মৃত বজল আহমদের ছেলে। রায়ে আসামিকে অপহরণের দায়ে ১৪ বছর এবং ধর্ষণের দায়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে ২০ হাজার টাকা করে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

রায়ের বিষয়টি নিশ্চিত করে ট্রাইব্যুনালের রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁশুলি জেসমিন আক্তার বলেন, ‘আসামির বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের আনীত অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় আদালত আসামিকে অপহরণের দায়ে ১৪ বছর এবং ধর্ষণের দায়ে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে। একই সঙ্গে ২০ হাজার টাকা করে ৪০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। রায়ের সময় আসামি আদালতে উপস্থিত ছিলেন। রায়ের পর তাকে কারাগারে পাঠানো হয়।’

আদালত সূত্র জানায়, ২০১৬ সালের ৪ অগাস্ট দশম শ্রেণির ছাত্রী মাদরাসায় যাওয়ার জন্য বাসা থেকে বের হয়। পরে ওই ছাত্রীর আর খোঁজ পাওয়া যাচ্ছিল না। পরবর্তীতে ছাত্রীর বাবা থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। শেষে পুলিশ চট্টগ্রাম নগরের কালুরঘাট এলাকা থেকে তাকে উদ্ধার করে এবং আসামি মাহমুদুর রহমানকে গ্রেপ্তার করে।

এ ঘটনায় মাহমুদুর রহমানের বিরুদ্ধে ছাত্রীর বাবা বাদী হয়ে অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেন। তদন্ত শেষে পুলিশ একই বছরের ২৭ অক্টোবর আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করে। ২০১৭ সালের ২৭ আগস্ট আদালতে অভিযোগ গঠন করা হয়। রাষ্ট্রপক্ষের ১১ জন সাক্ষীর মধ্যে সাতজনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আদালত বুধবার রায় ঘোষণা করেন।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা