kalerkantho

রবিবার। ১৭ নভেম্বর ২০১৯। ২ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

লামায় ‘ওয়াগ্যোয়েই পোয়েঃ’ উৎসব শুরু

লামা (বান্দরবান) প্রতিনিধি   

১৩ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



বান্দরবানের লামা উপজেলার পাহাড়ি পল্লীতে ‘ওয়াগ্যোয়েই পোয়েঃ’ বা প্রবারণা পূর্ণিমাকে ঘিরে আজ রবিবার থেকে ৩ দিনব্যাপী বর্ণাঢ্য উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে। বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী মারমা সম্প্রদায়ের অন্যতম ধর্মীয় উৎসব উদযাপনের জন্য পাহাড়ি পল্লীগুলোতে এখন খুশির সাজ সাজ রব। পূর্ণিমার দিন প্রতিটি কেয়াং (বিহার) ও বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী পল্লীতে ফানুস ওড়ানোসহ নদীতে হাজারো প্রদীপ প্রজ্বলন, রথযাত্রা, পিঠা তৈরি প্রতিযোগিতাসহ পালিত হবে নানান কর্মসূচি।

লামা কেন্দ্রীয় বৌদ্ধ বিহারের উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক ক্যজ্য মারমা জানান, ওয়াগ্যোয়াই পোয়েঃ উৎসব হচ্ছে মারমা সমপ্রদায়ের প্রধান ধর্মীয় উৎসব। এ উৎসবে এবারও ৩ দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করা হয়েছে। তার মধ্যে রয়েছে রথযাত্রা, হাজার প্রদীপ প্রজ্বলন, পিঠা তৈরি প্রতিযোগিতা, ফানুস ওড়ানো, পঞ্চশীল গ্রহণ, ধর্মীয় অনুষ্ঠানমালা এবং সাংস্কৃতিক পরিবেশনা।

গজালিয়া ইউনিয়নের উৎসব উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক উশৈঞ্য মারমা জানান, এবারে উপজেলা প্রবারণা উৎসব সবচেয়ে বড় অনুষ্ঠান হবে গজালিয়া গাইন্ধ্যাপাড়ায়। গজালিয়া গাইন্ধ্যা পাড়াতে সোমবার রথযাত্রার উৎসবের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করবেন উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মোস্তফা জামাল।

বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীরা জানান, তিন মাস বর্ষাবাস (উপোস) থাকার পর পাহাড়ি মারমা সমপ্রদায়ের লোকজন ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনায় ওয়াগ্যোয়াই পোয়েঃ উৎসব পালন করে থাকে। উপজেলার ৭টি ইউনিয়ন এবং ১টি পৌরসভার বিভিন্ন পাহাড়ি পল্লীতে ধর্মীয় এ উৎসব পালন করা হবে। পাহাড়ে মারমাদের পাশাপাশি বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বী বড়ুয়া, ম্রো, চাকমা, তঞ্চঙ্গ্যারাও এ “ওয়াগ্যোয়েই পোয়েঃ” উৎসব পালন করে থাকে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা