kalerkantho

বুধবার । ২৩ অক্টোবর ২০১৯। ৭ কাতির্ক ১৪২৬। ২৩ সফর ১৪৪১                 

সন্দ্বীপে গাছচাপায় প্রাণ গেল রিকশাচালকের

হাতিয়ায় বজ্রপাতে দুই রাখালের মৃত্যু

নোয়াখালী ও সন্দ্বীপ (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

১০ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ায় মাঠ থেকে গরু আনতে গিয়ে বজ্রপাতে দুই রাখালের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উপজেলার বুড়িরচর ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন ওই ইউনিয়নের বড়দৈইল গ্রামের ৬ নম্বর ওয়ার্ডের আবুল কালামের ছেলে কামরুল ইসলাম (৪৫) এবং একই ইউনিয়নের ওই গ্রামের মৃত জয়নাল আবেদীনের ছেলে আবুল কালাম (৫৫)।

বুড়িরচর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জিয়া আলী মোবারক কল্লোল জানান, সকাল সাড়ে ১০টায় গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি শুরু হলে মাঠ থেকে গরু আনার জন্য যান কামরুল ইসলাম ও আবুল কালাম। ওই সময়ে বজ্রপাতে ঘটনাস্থলে দুজনই মারা যান। পরে স্থানীয় লোকজন তাঁদেরকে মাঠে পড়ে থাকতে দেখে বাড়িতে খবর দেন। স্বজনরা এসে দুজনের নিথর দেহ উদ্ধার করেন। হাতিয়া থানার ওসি আবুল খায়ের বজ্রপাতে দুজনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

সন্দ্বীপ : গাছচাপায় প্রাণ হারিয়েছেন রিকশাচালক। বুধবার সকালে মাইটভাঙা কেরামতিয়া মাদরাসা মোড়ে দেলোয়ার খাঁ সড়কে এ ঘটনা ঘটে। নিহতের নাম সিরাজুল ইসলাম (৬০)। তিনি মাইটভাঙার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের মৃত ছৈয়দ আহাম্মদের ছেলে।

বুধবার সকাল ৮টার দিকে কেরামতিয়া মোড় সংলগ্ন দেলোয়ার খাঁ সড়কে ভাড়ার মালামাল নিয়ে সিরাজ রিকশা চালিয়ে যাচ্ছিলেন। হঠাৎ রাস্তার পাশের কাটা গাছ পড়ে তাঁর রিকশাকে চাপা দেয়। এতে মারাত্মক আহত হন  সিরাজ। দ্রুত তাঁকে সন্দ্বীপ মেডিক্যাল সেন্টারে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে এ দুর্ঘটনার জন্য গাছ কাটার সময় ঠিকাদারের অসতর্কতাকে দায়ী করেছে এলাকাবাসী। স্থানীয় সংবাদকর্মী ইসমাইল হোসেন মনি বলেন, ‘রাস্তায় গাছ কাটার সময় অনেক সতর্কতা অবলম্বন করতে হয়। ঠিকাদারের লোকজনের উদাসীনতায় দরিদ্র রিকশাচালককে জীবন দিতে হল।’

সন্দ্বীপ থানার অফিসার ইনচার্জ শেখ শরিফুল আলম বলেন, ‘ঠিকাদারের অসতর্কতায় রিকশাচালকের মৃত্যু হয়েছে। এ ব্যাপারে রিকশাচালকের পক্ষে অভিযোগ দিলে থানায় মামলা করা হবে।’

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা