kalerkantho

সোমবার । ২০ জানুয়ারি ২০২০। ৬ মাঘ ১৪২৬। ২৩ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪১     

দশম মৃত্যুবার্ষিকীতে স্মৃতিচারণা

‘কর্মী সৃষ্টির কারিগর ছিলেন এম এ মান্নান’

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



সাবেক মন্ত্রী ও প্রয়াত আওয়ামী লীগ নেতা এম এ মান্নানের দশম মৃত্যুবার্ষিকীর কর্মসূচিতে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও সাবেক মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, ‘এম এ মান্নান একজন শুদ্ধাচারী রাজনীতিক ছিলেন। তিনি ছিলেন রাজনীতিতে সৃজনশীল কর্মী সৃষ্টির কারিগর। তাঁর আদর্শিক দায়বদ্ধতা আমাদের প্রকৃত রাজনীতিক হিসেবে গড়ে ওঠার প্রেরণা জুগিয়েছে।’

গতকাল শনিবার সকালে এম এ মান্নানের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত আলোচনাসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ এসব কথা বলেন। মরহুমের নগরের দামপাড়ার কবর প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত এই সভায় দল ও সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন আরো বলেন, এম এ মান্নান তাঁর বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনে অনেক ঘাত-প্রতিঘাত পেরিয়ে এমপি-মন্ত্রী হয়েছিলেন। কিন্তু মন্ত্রী থাকা সত্ত্বেও কোনো অবৈধ সম্পদের পাহাড় গড়েননি। তিনি বলেন, ‘আজকাল আমরা বক্তব্যের মধ্যে অনেক ফুলঝুড়ি ছিটিয়ে থাকি, কিন্তু বাস্তব ক্ষেত্রে তার প্রতিফলন নেই বললেই চলে।’

চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, এম এ মান্নান আপাদমস্তক একজন গণতান্ত্রিক, নির্লোভ ও নিরহংকারী রাজনৈতিক নেতা ছিলেন।

সভাপতির বক্তব্যে চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মাহতাব উদ্দিন চৌধুরী বলেন, এম এ মান্নানকে খুব কাছে থেকে দেখেছি রাজনীতিতে তিনি সুদক্ষ কর্মী গঠনে সর্বদা নিজেকে নিয়োজিত রাখতেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এমপি, উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এ বি এম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি, সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এম এ সালাম। সভায় আরো বক্তব্য দেন মরহুমের জ্যেষ্ঠ সন্তান চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী লীগের সদস্য আবদুল লতিফ টিপু, বাগমনিরাম ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি কাউন্সিলর মো. গিয়াস উদ্দিন প্রমুখ।

এর আগে সকালে মরহুমের কবরস্থ জামে মসজিদে মিলাদ মাহফিল শেষে মহানগর আওয়ামী লীগসহ বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে কবরে পুষ্পমাল্য অর্পণ করা হয়।

 

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা