kalerkantho

কাউখালীতে দুদকের গণশুনানি

‘নিরাপত্তার স্বার্থে’ পরিচয় দেননি অনেক অভিযোগকারী

কাউখালী (রাঙামাটি) প্রতিনিধি   

১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



কাউখালীতে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) গণশুনানিতে লিখিতভাবে অভিযোগকারীর অধিকাংশ তাঁদের নাম প্রকাশ করেননি। এর কারণ হিসেবে তাঁরা হয়রানিসহ নিজের নিরাপত্তার বিষয়টি উল্লেখ করেন। বুধবার সকালে কাউখালী উপজেলা প্রশাসন ও উপজেলা দুর্নীতি প্রতিরোধ কমিটির আয়োজনে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে ওই গণশুনানিতে প্রধান অতিথি ছিলেন দুর্নীতি দমন কমিশনের সচিব মুহাম্মদ দিলোয়ার বখ্ত। নির্দিষ্ট একটি ফরমে পাওয়া অভিযোগগুলো গণশুনানিতে উপস্থাপন করা হয়।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শতরূপা তালুকদারের সভাপতিত্বে গণশুনানিতে মডারেটর ছিলেন রাঙামাটির অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক শারমিন আলম। আরো বক্তব্য দে দুদকের চট্টগ্রাম বিভাগীয় পরিচালক মাহমুদ হাসান, কাপ্তাই সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জোনায়েদ কাউসার, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শামশুদোহা চৌধুরী প্রমুখ।

দুর্নীতি দমন কমিশনের সচিব মুহাম্মদ দিলোয়ার বখ্ত বলেন, ‘আমরা জনগণের প্রতিটি অভিযোগের বিষয়ে আন্তরিক। অভিযোগ আমাদের জানান। নাম পরিচয় গোপন রেখে দুর্নীতিবাজদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করব।’

গণশুনানিতে উপজেলা প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে প্রতিটি কাজে ঘুষ নেওয়া, জেলা পরিষদের শিক্ষকসহ বিভিন্ন নিয়োগ পরীক্ষায় ৮ থেকে ১০ লক্ষ টাকা ঘুষগ্রহণ, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন কার্যক্রমে ঘুষগ্রহণ, ৪০ দিনের কর্মসূচিতে কাজ না করে টাকা আত্মসাতসহ বিভিন্ন অভিযোগ উঠেছে। 

তবে সবকটি অভিযোগ দাপ্তরিক প্রধানরা মিথ্যা বলে দাবি করলেও বেশ কয়েকটি অভিযোগের বিষয়ে দুদক রাঙামাটি ও উপজেলা প্রশাসনকে তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণসহ প্রতিবেদন দিতে নির্দেশ দেন দুদক সচিব।

মন্তব্য