kalerkantho

মঙ্গলবার । ১২ নভেম্বর ২০১৯। ২৭ কার্তিক ১৪২৬। ১৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

নোয়াখালীতে গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগে স্বামী আটক

নোয়াখালী প্রতিনিধি   

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার বসুরহাট পৌর এলাকার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে পুলিশ শিরিন সুলতানা ফেন্সী (২২) নামের এক গৃহবধূর মৃতদেহ উদ্ধার করেছে। এ ঘটনায় কোম্পানীগঞ্জ থানা পুলিশ গৃহবধূর স্বামী ইমাম হোসেন ও শ্বশুর হুমায়ন কবির কাউছারকে আটক করেছে। স্বামীকে আটক দেখালেও শ্বশুরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুর ২টার দিকে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে।

নিহত শিরিন সুলতানা ফেন্সী সেনবাগ উপজেলার নবীপুর ইউনিয়নের বিষ্ণুপুর গ্রামের ইমাম উদ্দিনের মেয়ে এবং বসুরহাট পৌরসভার ৯নং ওয়ার্ড সারেংবাড়ির ইমাম হোসেনের স্ত্রী।

শিরিনের বড় ভাই সিরাজুল ইসলাম জানান, ২০১৩ সালে ইমাম হোসেনের সঙ্গে তাঁরই ছোট বোন ফেন্সীর বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে ইমাম ফেন্সীকে মারধর করতেন। কিছুদিন আগে ইমাম আরেকটি বিয়ে করেন। এ বিষয় নিয়ে ফেন্সীকে প্রায় মারধর করতেন ইমাম। মঙ্গলবার দুপুরে ইমাম ও তাঁর পরিবারের লোকজন ফেন্সীকে হত্যা করে লাশ কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রেখে পালিয়ে যান বলে অভিযোগ করেন তিনি।

কোম্পানীগঞ্জ থানার ওসি আসাদুজ্জামান জানান, নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে তাঁদের পারিবারিক বিরোধ ছিল বলে জানা গেছে। ময়নাতদন্ত শেষে হত্যার কারণ জানা যাবে। এ ঘটনায় তাঁর স্বামীকে আটক করা হয়েছে এবং শ্বশুরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা