kalerkantho

শুক্রবার । ১৫ নভেম্বর ২০১৯। ৩০ কার্তিক ১৪২৬। ১৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

নোবিপ্রবিতে ছাত্রলীগের সংঘর্ষ

তদন্ত কার্যক্রম শুরু মামলার প্রস্তুতি

ভাষা শহীদ আব্দুস সালাম হল বন্ধ ঘোষণা
ঘটনা তদন্তে ৭ সদস্যের কমিটি

নোবিপ্রবি প্রতিনিধি   

৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (নোবিপ্রবি) ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনায় তদন্ত কার্যক্রম গতকাল মঙ্গলবার শুরু হয়েছে। এ ছাড়া সংঘর্ষের মধ্যে পড়ে শিক্ষক আহত হওয়ার ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। আর মালেক উকিল হলের প্রাধ্যক্ষ ড. ফিরোজ আহমেদের ওপর হামলার ঘটনায় গতকাল মানববন্ধন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি।

গত শনিবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষা শহীদ আব্দুস সালাম হলের সামনে সিগারেট খাওয়াকে কেন্দ্র করে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি সফিকুল ইসলাম রবিন ও সাধারণ সম্পাদক সাকিব মোশাররফ ধ্রুবর অনুসারীদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এ ঘটনার জের ধরে পরদিন রাতে তারা ফের সংঘর্ষে জড়ায়। রবিবারের ঘটনায় আব্দুল মালেক উকিল হলের প্রাধ্যক্ষ ড. ফিরোজ আহমেদসহ কয়েকজন শিক্ষক আহত হন। এ ঘটনার পর ভাষা শহীদ আব্দুস সালাম হল অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়। ঘটনা তদন্তে গঠন করা হয় সাত সদস্যের কমিটি।

জানতে চাইলে তদন্ত কমিটির সদস্য বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. নেওয়াজ মো. বাহাদুর বলেন, ‘আমরা আজ (মঙ্গলবার) ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী শিক্ষক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের সাক্ষাৎকার নিয়েছি। আগামীকাল বুধবার ঘটনায় জড়িত শিক্ষার্থীদের সাক্ষাৎকার নেব।’ শিক্ষকের ওপর হামলার ঘটনায় মামলা করা হয়েছে কি না—এ প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, মামলার প্রস্তুতি চলছে।

তদন্ত কমিটির সদস্যসচিব কাওসার হোসেন জানিয়েছেন, সংঘর্ষের ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী ও ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীদের লিখিত বক্তব্য জমাদানের জন্য বলা হয়েছে। তারা কৃষি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও ভাষা শহীদ আব্দুস সালাম হলের ভারপ্রাপ্ত প্রাধ্যক্ষ কাওসার হোসেনের কার্যালয়ে খামে বক্তব্য দিতে পারবে। এ ছাড়া ই-মেইলও ([email protected]) বক্তব্য পাঠানো যাবে। নিরাপত্তার স্বার্থে বক্তব্যদানকারীর নাম, বিভাগ ও রোল নম্বর গোপন রাখা হবে।

এদিকে ছেলেদের একমাত্র হল বন্ধ হয়ে যাওয়ায় বিপাকে পড়েছে আবাসিক ছাত্ররা। তারা নোয়াখালী শহর ও বিশ্ববিদ্যালয়ের আশপাশের মেসগুলোতে অবস্থান করছে। এসব শিক্ষার্থীকে আজ বুধবার সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৪টার মধ্যে হল থেকে জিনিসপত্র নিয়ে যেতে বলেছে হল প্রশাসন।

শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন : এদিকে আব্দুল মালেক উকিল হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. ফিরোজ আহমেদের ওপর হামলার প্রতিবাদে ও হামলাকারীদের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছে নোবিপ্রবি শিক্ষক সমিতি। গতকাল সকাল ১১টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের গোল চত্বরে এ কর্মসূচি পালিত হয়।

শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. গাজী মো. মহসীনের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মো. নাসির উদ্দিনের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে বত্তৃদ্ধতা করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. দিদার-উল-আলম, ট্রেজারার ফারুক উদ্দীন, রেজিস্ট্রার মমিনুল হক, প্রক্টর নেওয়াজ মু. বাহাদুর প্রমুখ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা