kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ২১ নভেম্বর ২০১৯। ৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয়

নিজস্ব জমিতে ভবন নির্মাণ শুরু

নিজস্ব প্রতিবেদক, বান্দরবান   

১ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



অস্থায়ী ক্যাম্পাসে আনুষ্ঠানিক পাঠদান শুরুর চার মাসের মাথায় বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব জমিতে একাডেমিক ভবন নির্মাণের কাজ শুরু হয়েছে। প্রাথমিক পর্যায়ে একাডেমিক ভবন নির্মাণে পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের কাছ থেকে ৫ কোটি টাকা বরাদ্দ পাওয়া গেছে। এই অর্থে বোর্ডের প্রকৌশলীদের তত্ত্বাবধানে একটি ত্রিতল ভবনের নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে শনিবার থেকে। পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি সকালে নির্মাণকাজের ভিত্তিফলক উন্মোচন করেন।

অনুষ্ঠানে বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ঈমান আলী, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ক্যশৈহ্লা, জেলা প্রশাসক মো. দাউদুল ইসলাম, পুলিশ সুপার জাকির হোসেন মজুমদার, বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের ডিনগণ, ট্রাস্টি বোর্ডের পরিচালকবৃন্দ এবং শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন।

পাবলিক-প্রাইভেট পার্টনারশিপ (পিপিপি) কর্মসূচির আওতায় স্থাপিত বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয় দেশের শততম বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর অনুমোদন লাভ করে। বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ সরকারের পক্ষে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্যতম অংশীদার। বান্দরবান জেলা শহরের প্রধান সড়কে অস্থায়ী ক্যাম্পাস স্থাপনের মাধ্যমে ৬টি বিষয়ে অনার্স ও মাস্টার্স কোর্স চালু করে মে মাস থেকে শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার নুরুল আফছার জানান, বান্দরবান জেলা শহরের প্রবেশমুখ সুয়ালক এলাকায় প্রায় ১০০ একর জমিতে এক অনিন্দ্য প্রাকৃতিক পরিবেশে বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ক্যাম্পাস ও হোস্টেল নির্মাণ এবং অন্যান্য সুবিধাসমুহ সন্নিবেশিত করা হবে। আগামী তিন বছরের মধ্যে নিজস্ব ক্যাম্পাসে বান্দরবান বিশ্ববিদ্যালয় পুরোপুরি স্থানান্তরিত করা হবে বলে জানান নুরুল আফছার।

২০২২ সালের জুন মাসের আগেই একাডেমিক ভবন নির্মাণ করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা যাবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী আবু বিন ইয়াসির আরাফাত।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা