kalerkantho

বাঁশখালীতে গৃহবধূ খুন

বাবাকেও হত্যার হুমকি আসামি অধরা

বাঁশখালী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি   

৬ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



যৌতুকের জন্য পিটিয়ে পাঁচ সন্তানের মাকে হত্যার পাঁচ দিনেও জড়িতদের কেউ গ্রেপ্তার হয়নি। উল্টো বাদীকে মামলা উঠিয়ে নিয়ে ঘটনা মীমাংসা করার হুমকি দিচ্ছে আসামি ও তাঁদের আত্মীয়স্বজন। অপরদিকে পুলিশ বলছে, আসামিকে গ্রেপ্তারে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে। আসামিরা ঘন ঘন ঠিকানা পরিবর্তন করায় গ্রেপ্তারে বিলম্ব হচ্ছে।

জানা গেছে, ২০০৪ সালে গণ্ডামারা ইউনিয়নের পশ্চিম গণ্ডামারা গ্রামের নজির আহমদের মেয়ে সাজমা খাতুনের সঙ্গে শীলকূপ ইউনিয়নের পশ্চিম মনকিরচর গ্রামের মোহাম্মদ ইসমাইলের ছেলে মোস্তাক আহমদের বিয়ে হয়। মোস্তাক আহমদ মাছধরা নৌকায় চাকরি করেন। ১৫ বছরের সংসারে মো. মিজবাহ (১০), মুনমুন আক্তার (৮), কলিমুল্লাহ (৬), তকওয়া (৪) ও ওয়াকিয়া (১০ মাস) নামে পাঁচ সন্তান রয়েছে তাঁদের। গত ১ আগস্ট গলায় রশি প্যাঁচানো অবস্থায় সাজমা খাতুনের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। ঘটনার সময় স্বামী  মোস্তাক আহমদ বাড়িতে ছিলেন না। এ ঘটনায় সাজমার বাবা নজির আহমদ বাদী হয়ে শ্বশুড়-শাশুড়ি-ননদ-দেবর ও দেবরের স্ত্রীকে আসামি করে ওই রাতে মামলা করেন।

নজির আহমদ বলেন, ‘পুলিশ গ্রেপ্তার না করায় আসামিরা বেপরোয়া।’

বাঁশখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ রেজাউল করিম মজুমদার বলেন, ‘সাজমা হত্যায় জড়িতদের গ্রেপ্তারে পুলিশ অভিযান অব্যাহত রেখেছে। আসামিরা ঘন ঘন ঠিকানা পরিবর্তন করায় পুলিশ অভিযানে গিয়েও ব্যর্থ হচ্ছে। পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে খুনিরা রক্ষা পাবে না। শিগগিরই গ্রেপ্তার হবে।’

মন্তব্য