kalerkantho

লামায় খালে ডুবে শিশুর প্রাণহানি

পটিয়ায় গাছ থেকে পড়ে স্কুলশিক্ষকের মৃত্যু

পটিয়া (চট্টগ্রাম) ও লামা (বান্দরবান) প্রতিনিধি   

৪ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



উপজেলার হাইদগাঁওয়ে এক স্কুলশিক্ষক ডাল কাটতে গিয়ে গাছ থেকে পড়ে মারা গেছেন। তাঁর নাম রেজাউল করিম (৪০)। তিনি উত্তর হাইদগাঁও গ্রামের মরাখাল এলাকার বক্স আলী ডাক্তার বাড়ির দেলোয়ার হোসেনের ছেলে। শনিবার দুপুর ১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, পটিয়া উপজেলার ছনহরা ইউনিয়নের ধাউরডেঙা উচ্চ বিদ্যালয়ের শরীরচর্চা বিভাগের শিক্ষক রেজাউল করিম শনিবার নিজ গ্রামের বাড়ির গাছের ডাল কাটতে গাছে উঠেন। দুপুর ১টার দিকে ডাল কাটার এক পর্যায়ে গাছ থেকে তিনি নিচে পড়ে গুরুতর আহত হন। এলাকার লোকজন তাঁকে পটিয়া হাসপাতালে নিলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন। তাঁর স্ত্রী ও দু মেয়ে রয়েছে।

পটিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হাসপাতালের স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. তনয় তালুকদার বলেন, ‘ওই স্কুলশিক্ষক গাছ থেকে পড়ে মাথায় আঘাত পেয়েছেন। হাসপাতালে আনার আগেই তাঁর মৃত্যু হয়েছে।’

লামা : খালের পানিতে ডুবে আফিয়া আক্তার নামে দুই বছরের এক কন্যাশিশুর মৃত্যু হয়েছে। শনিবার দুপুরে লামা উপজেলার রুপসীপাড়া ইউনিয়নের ওপর দিয়ে বয়ে চলা লামা খালের অংহ্লাপাড়া এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। আফিয়া আক্তার অংহ্লাপাড়ার বাসিন্দা জসিম উদ্দিনের মেয়ে।

শনিবার দুপুর ১২টার দিকে আফিয়া আক্তার লামা খালের পাড়ে খেলা করছিল। এক পর্যায়ে শিশুটি খালে পড়ে গেলে স্রোতের টানে ভেসে যায়। পরে অনেক খোঁজাখুঁজির পর স্থানীয়দের সহযোগিতায় লামারমুখ মাতামুহুরী নদীর ঘাট থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান স্বজনেরা। সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক শিশু আফিয়া আক্তারকে মৃত ঘোষণা করেন। রুপসীপাড়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ছাচিংপ্রু মার্মা খালের পানিতে ডুবে শিশুর মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করছেন।

মন্তব্য