kalerkantho

শনিবার । ২৪ আগস্ট ২০১৯। ৯ ভাদ্র ১৪২৬। ২২ জিলহজ ১৪৪০

খাগড়াছড়িতে তিন কৃতী নারী ফুটবলার সংবর্ধিত

খাগড়াছড়ি প্রতিনিধি   

৪ জুন, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



খাগড়াছড়িতে তিন কৃতী নারী ফুটবলার সংবর্ধিত

তিন ফুটবলার মনিকা চাকমা, আনাই ও আনুচিং মগিনী। ছবি : কালের কণ্ঠ

পার্বত্য জেলা খাগড়াছড়ির কৃতী নারী ফিফার র‍্যাংকিংয়ে সেরা গোলদাতাদের মধ্যে ৫ম স্থান অধিকারী মনিকা চাকমা এবং যমজ দুই কৃতী ফুটবলার আনাই ও আনুচিং মগিনীকে গণসংবর্ধনা দেওয়া হয়েছে। গতকাল সকালে খাগড়াছড়ি অফিসার্স ক্লাবে সংবর্ধনার আয়োজন করে পার্বত্য জেলা পরিষদ ও জেলা ক্রীড়া সংস্থা।

অনুষ্ঠানে তাদেরকে পার্বত্য জেলা পরিষদ, জেলা ক্রীড়া সংস্থা ছাড়াও জেলা পুলিশ, পৌরসভা, দৈনিক অরণ্যবার্তা এবং ত্রিপুরা কল্যাণ সংসদের পক্ষ থেকে সন্মাননা ক্রেস্ট দেওয়া হয়। এর আগে কৃতী তিন ফুটবলারকে সুসজ্জিত গাড়িতে করে শহর প্রদক্ষিণ করানো হয় এবং ফুলেল শুভেচ্ছায় সিক্ত করা হয়েছে।

পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরীর সভাপতিত্বে গণসংবর্ধনায় প্রধান অতিথি ছিলেন পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব কবির বিন আনোয়ার। বক্তব্য দেন কৃতী ফুটবলার মনিকা চাকমা, সেনাবাহিনীর খাগড়াছড়ি রিজিয়ন কমান্ডার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল হামিদুল হক, জেলা প্রশাসক মো. শহিদুল ইসলাম, পুলিশ সুপার মো. আহমার উজ্জামানান প্রমুখ। সাংবাদিক আজহার হীরার উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব রোকন উদ দৌলা, ডিজিএফআই কমান্ডার কর্নেল নাজিম উদ্দিন, পৌরসভার মেয়র রফিকুল আলম, উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শানে আলম, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সেক্রেটারি জুয়েল চাকমা।

সংবর্ধনায় পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী কৃতী ফুটবলাদের বাড়ি নির্মাণ করে দেওয়াসহ এককালীন বৃত্তি প্রদানের আশ্বাস দেন।

উল্লেখ্য, চলতি বছর ঢাকায় অনুষ্ঠিত বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেসা আন্তর্জাতিক ফুটবল টুর্নামেন্টে মঙ্গোলিয়ার সঙ্গে খেলায় মনিকা চাকমার দেওয়া গোলটি ফিফার বছরের সেরা গোলগুলোর মধ্যে পঞ্চম হয়। ফিফা তাকে ‘ম্যাজিকেল চাকমা’ নামে উপাধি দেয়। এ ছাড়া যমজ বোন আনাই ও আনুচিং বয়সভিত্তিক আন্তর্জাতিক বিভিন্ন ফুটবল টুর্নামেন্টে নিয়মিত খেলছে। তিনজনই বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেসা আন্তঃস্কুল ফুটবল থেকে উঠে আসা। মনিকা চাকমার বাড়ি জেলার অনগ্রসর লক্ষ্মীছড়ি উপজেলার দুর্গম বর্মাছড়িতে আর যমজ কন্যাদ্বয়ের বাড়ি জেলা সদরের প্রত্যন্ত সাতভাইয়াপাড়ায়।

মন্তব্য