kalerkantho

শুক্রবার । ২২ নভেম্বর ২০১৯। ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

গ্যাস সরবরাহ বন্ধ সীমাহীন ভোগান্তি

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



গ্যাস সরবরাহ বন্ধ সীমাহীন ভোগান্তি

নগরের ইপিজেড আকমল আলী রোড এলাকায় খাল খননের জন্য পাইলিং করার সময় গ্যাসের ২৪ ইঞ্চি ব্যাসের উচ্চ চাপবিশিষ্ট পাইপলাইন ফুটো হয়ে গেছে। এতে নগরের একটি বড় অংশে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ রাখে কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কম্পানির (কেজিডিসিএল)। শনিবার সকালে এই দুর্ঘটনা ঘটলেও গতকাল রবিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত পাইপলাইনে সংস্কার শেষ করতে পারেনি কর্তৃপক্ষ। তবে গ্যাস কর্তৃপক্ষ বলছে, রবিবার রাত ১২টা নাগাদ গ্যাস সরবরাহ স্বাভাবিক হবে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সিটি করপোরেশনের ঠিকাদার আকমল আলী রোড এলাকায় খাল খননের জন্য পাইলিং করার সময় গ্যাসের ২৪ ইঞ্চি ব্যাসের পাইপলাইন ফুটো হয়ে যায়। এসময় বিস্ফোরণের মতো শব্দ হয়। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কম্পানির কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পরে ওই পাইপলাইনে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ করে দেওয়া হয়। এ ঘটনায় পতেঙ্গা, ইপিজেড থেকে শুরু করে বন্দর আবাসিক, হালিশহর, আগ্রবাদ, টাইগারপাস, পাহাড়তলী, খুলশীসহ নগরের একটি বড় অংশ এলাকায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়।

এ প্রসঙ্গে কর্ণফুলী গ্যাস ডিস্ট্রিবিউশন কম্পানির মহাব্যবস্থাপক (প্রকৌশল) আনিস উদ্দিন আহমদ কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আকমল আলী রোড এলাকায় মাইট্টাল খাল খননের জন্য পাইলিং করছিল সিটি করপোরেশনের ঠিকাদারের কর্মীরা। এসময় খালের মাটির ১৫ ফুট নিচে থাকা পাইপলাইন ফুটো হয়ে যায়।’

গ্যাস লাইনে সংস্কার কাজ চলছে জানিয়ে তিনি আরো বলেন, ‘খালের মাটি নরম ও ভেজা থাকায় বার বার পাড় ভেঙে পড়ছে। তাই সংস্কার কাজ বিলম্বিত হচ্ছে। আশা করি রবিবার রাতের মধ্যেই গ্যাস সরবরাহ চালু করা সম্ভব হবে।’

এদিকে শনিবার সন্ধ্যা থেকে নগরের বিভিন্ন এলাকায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকায় ভোগান্তিতে পড়েছেন নগরবাসী। খাবারের হোটেলে রবিবার সকাল থেকে চাপ বেড়েছে। অনেক এলাকায় হোটেলেও খাবার মেলেনি।

হালিশহর আবািসক এলাকার বাসিন্দা আবদুস সবুর কালের কণ্ঠকে জানান, শনিবার সকাল থেকে গ্যাস সরবরাহ বন্ধ হয়ে পড়ায় ঘরে কোনো রান্না হয়নি। রবিবারও হোটেল থেকে কিনে আনতে হয়েছে সকাল ও দুপুরের খাবার।

বিভিন্ন এলাকায় গ্যাস সরবরাহ বন্ধ থাকায় নগরের অধিকাংশ সিএনজি ফিলিং স্টেশন গতকাল বন্ধ রাখা হয়। এতে ভোগান্তিতে পড়েন গাড়ি চালক ও মালিকরা।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা