kalerkantho

মঙ্গলবার । ২২ অক্টোবর ২০১৯। ৬ কাতির্ক ১৪২৬। ২২ সফর ১৪৪১              

ফেনী

নেতাদের দৌড়ঝাঁপ কেন্দ্রে

আসাদুজ্জামান দারা, ফেনী   

১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



নেতাদের দৌড়ঝাঁপ কেন্দ্রে

বাঁ থেকে : আব্দুর রহমান বিকম, মেজবাউল হায়দার চৌধুরী সোহেল, দিদারুল কবির রতন ও আব্দুল আলীম (উপরে) এবং কামাল উদ্দিন মজুমদার, শুসেন চন্দ্র শীল, রুহুল আমিন ও এম আজহারুল হক আরজু।

আসন্ন উপজেলা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ফেনীর সম্ভাব্য প্রার্থীদের চোখে এখন ঘুম নেই। তাঁরা দলের মনোনয়ন লাভের আশায় জোর তৎপরতা চালাচ্ছেন কেন্দ্রে। বিশেষ করে চেয়ারম্যান পদে আগ্রহী নেতারা কেন্দ্রীয় নেতাদের দ্বারে দ্বারে ধর্না দিচ্ছেন। ইতোমধ্যে ফেনী জেলা আওয়ামী লীগের একাধিক সভায় স্থানীয়ভাবে ৬ জন চেয়ারম্যান প্রার্থী ও ১২ জন ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী চূড়ান্ত করা হলেও এখন তা কেন্দ্রের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় রয়েছে।

দলের সূত্রমতে, এবার ফেনী সদর উপজেলা চেয়ারম্যান পদে অনেকটা চমক দেখিয়েছে জেলা কমিটি। এখানে জেলা পর্যায়ের সভায় জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও ফেনী সদর উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান, বর্ষীয়ান নেতা আব্দুর রহমান বিকমকে বাদ দিয়ে মনোনয়ন দেওয়া হয় তরুণ নেতা, জেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক শুসেন চন্দ্র শীলকে।

এদিকে সাবেক এমপি জয়নাল হাজারীর ক্লাস কমিটির এক সময়ের আলোচিত ‘ক্যাপ্টেন’, জেলা যুবলীগের সাবেক আহ্বায়ক এম আজহারুল হক আরজুও ফেনী সদর উপজেলা চেয়ারম্যান পদে দলীয় মনোনয়ন চেয়েছেন।

সূত্র মতে, এবার সোনাগাজী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান জেড এম কামরুল আনামের পরিবর্তে সেখানে জেলা কমিটি থেকে মনোনয়ন দেওয়া হয় উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রুহুল আমিনকে। এর আগে কামরুল আনাম উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন এবং টানা দুবারের উপজেলা চেয়ারম্যান। তাঁকে বাদ দিয়ে অনেকটা নতুন আসা রুহুলকে মনোনয়ন দেওয়ায় নেতাকর্মীদের মাঝে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে। অন্য উপজেলাগুলোর মধ্যে ছাগলনাইয়ায় বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মেজবাউল হায়দার চৌধুরী সোহেলকে জেলা কমিটি এবারও মনোনয়ন দিয়েছে। একইভাবে দাগনভূঁঞা উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান ও জেলা যুবলীগের সভাপতি দিদারুল কবির রতনকে জেলা কমিটি থেকে মনোনয়ন দেওয়া হয়। পরশুরাম উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কামাল উদ্দিন মজুমদার এবারও জেলা কমিটির মনোনয়ন পেয়েছেন। ফুলগাজী উপজেলা পরিষদের বর্তমান চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আলীম এবারও জেলা কমিটির মনোনয়ন লাভ করেছেন।

এ প্রসঙ্গে জেলা আওয়ামী লীগের সাধরণ সম্পাদক ও ফেনী-২ আসনের এমপি নিজাম উদ্দিন হাজারী বলেন, ‘ছয় উপজেলাতেই বেশ কয়েকজন করে প্রার্থী চেয়ারম্যান পদে দলের কাছে মনোনয়ন চেয়েছিলেন। জেলা কমিটির একাধিক সভায় সবার সাথে আলোচনা করে আমরা ৬ জন প্রার্থী নির্ধারণ করেছি।’

অপরদিকে ৬টি উপজেলায় ভাইস চেয়ারম্যান ও নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী হতেও জোর তৎপরতা চালাচ্ছেন নেতা-নেত্রীরা। ইতোমধ্যে জেলা কমিটি ৬ উপজেলার ১২ ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী চূড়ান্ত করেছে বলে জানায় দলীয় সূত্র। এঁরা হলেন ফেনী সদরে জেলা আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক শহীদ খোন্দকার, জোসনা আরা জুসি, দাগনভূঁঞায় মো. শাহীন ও রোকসানা সিদ্দিকী, পরশুরামে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এনামুল করিম মজুমদার বাদল, শামসুন্নাহার পাপিয়া, ফুলগাজীতে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আবুল আলম আজমীর, বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান মঞ্জুরা আজিজ। সোনাগাজীতে সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান শাখাওয়াতুল হক বিটু ও বর্তমান ভাইস চেয়ারম্যান জোবেদা নাহার মিলি। ছাগলনাইয়ায় এনামুল হক ও বিবি জুলেখা শিল্পী। তবে এদের বাইরেও আরো বেশ কয়েকজন আগ্রহী প্রার্থী রয়েছেন ভাইস চেয়ারম্যান পদে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা