kalerkantho

শুক্রবার । ২২ নভেম্বর ২০১৯। ৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬। ২৪ রবিউল আউয়াল ১৪৪১     

বাঘাইছড়িতে জেএসএসের ৪৮ ঘণ্টার অবরোধ

পাহাড়িদের বাজার বর্জন অব্যাহত

দীঘিনালা (খাগড়াছড়ি) প্রতিনিধি   

১৭ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



রাঙামাটির বাঘাইছড়িতে চলছে ৪৮ ঘণ্টার অবরোধ। জেএসএস কর্মী (এমএন লারমা) বসু চাকমা হত্যার ঘটনায় জেএসএস (সন্তু)  কর্মীদের নামে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে এ অবরোধ ডাকা হয়েছে। আজ বৃহস্পতিবার টানা ৪৮ ঘণ্টার অবরোধ শেষ হলেও বাঘাইছড়ির সব বাজার পাহাড়িদের বর্জন অব্যাহত থাকবে বলে সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন।

অবরোধের প্রথম দিনে গতকাল বুধবার কোথাও বড় ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি। তবে কেয়াংঘাট এলাকায় একটি মোটরসাইকেল আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছেন অবরোধকারীরা। বুধবার বাঘাইছড়ির সাথে সকল সড়ক ও নৌপথের যোগাযোগ বন্ধ ছিল।

৪ জানুয়ারি বাঘাইছড়ির বাবুপাড়ায় দুর্বৃত্তের গুলিতে নিহত হন জেএসএস (এমএন লারমা) এর যুব সংগঠন যুব সমিতির সদস্য বসু চাকমা (৪০)। এ ঘটনায় পরদিন প্রভাত কুসুম তালুকদার বাদী হয়ে ২৭ জনের নাম উল্লেখপূর্বক আরো ৭/৮ জনকে অজ্ঞাত আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলায় জেএসএস সন্তু পক্ষের লোকদের আসামি করা হয়। দলীয় নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত এ মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে ৪৮ ঘণ্টার অবরোধের ডাক দেয় জেএসএস সন্তু পক্ষ।

দলটির সাধারণ সম্পাদক এবং বাঘাইছড়ি উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বড়ঋষি চাকমা তাঁদের নেতাকর্মীদের নামে দায়েরকৃত মামলা প্রত্যাহারের দাবি জানিয়ে বলেন, ‘নিদিষ্ট সময়ের আহূত অবরোধ চলবে। মামলা প্রত্যাহার না হলে পরবর্তীতে আবারও কর্মসূচি দেওয়া হবে। এ ছাড়া মামলা প্রত্যাহারের আগ পর্যন্ত বাঘাইছড়ির সকল বাজার পাহাড়িদের বর্জন কর্মসূচি অব্যাহত থাকবে।’

বাঘাইছড়ি থানার অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মনজুর জানান, সড়কে যান চলাচলে কেউ বিঘ্ন সৃষ্টি করলে তাঁদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সার্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর টহল বাড়ানো হয়েছে।

এদিকে বুধবার দুপুর আড়াইটার দিকে বাঘাইহাট থেকে খাগড়াছড়ি যাওয়ার পথে হাজাছড়া এলাকায় একটি মোটরসাইকেল আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দিয়েছেন অবরোধকারীরা। এ ঘটনার খবর পেয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থলে পৌঁছে চালককে উদ্ধার করেন।

মোটরসাইকেল চালক মো. নাছির (৪৩) জানান, তিনি খাগড়াছড়ি সদরের বাসিন্দা। অবরোধকারীরা তাঁর মোটরসাইকেলে অগ্নিসংযোগের পর তাঁকে মারধর করে।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা