kalerkantho

মঙ্গলবার । ১৫ অক্টোবর ২০১৯। ৩০ আশ্বিন ১৪২৬। ১৫ সফর ১৪৪১       

পোল্ট্রি শিল্পকে রক্ষায় এগিয়ে আসার তাগিদ

নিজস্ব প্রতিবেদক, চট্টগ্রাম   

২৯ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



দেশের প্রাণীজ আমিষের সিংহভাগ চাহিদার জোগান দিয়েও পোল্ট্রি সেক্টর  ষড়যন্ত্র থেকে রেহাই পাচ্ছে না।  বিরাজমান বিভ্রান্তি, অনিয়ম দূর করে এ সেক্টরকে নিরাপদ করা না গেলে আগামী প্রজন্ম প্রাণীজ আমিষের ঘাটতিতে পড়বে।

বৃহস্পতিবার  ক্যাব চট্টগ্রামের উদ্যোগে পোল্ট্রি শিল্পের সংকট উত্তরণে এক অনুষ্ঠানে একথা বলা হয়। এতে পোল্ট্রি সেক্টরে জড়িত খামারি, হ্যাচারি, খুচরা বিক্রেতা, ক্রেতা-ভোক্তা, সরকারি দায়িত্বশীল কর্মকর্তা, গণমাধ্যমকর্মী ও নাগরিক সমাজের সমন্বিত উদ্যোগ নেওয়ার আহ্বান জানানো হয়। 

বক্তারা বলেন, বর্তমানে দেশি পোল্ট্রি মুরগির বাচ্চা ও ফিডের অতিরিক্ত মূল্য, উৎপাদন খরচের তুলনায় বিক্রি মূল্য কম হওয়ায় অনেক খামারি পুঁজি হারিয়ে অনেকটা নিঃস্ব। অনেকে অন্য ব্যবসায় মনোনিবেশ করছেন। এ অবস্থায় দেশে নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করা, বিশেষ করে আমিষের অন্যতম জোগানদাতা পোল্ট্রি শিল্পকে ধ্বংসের হাত থেকে রক্ষা করতে হবে।

নগরীর ভেটেরিনারি অ্যান্ড অ্যানিম্যাল সায়েন্স ইউনিভার্সিটির মেডিসিন ফ্যাকাল্টির কনফারেন্স হলে ‘সেফটি গভর্নেন্স ইন পোল্ট্রি সেক্টর’ প্রকল্পের সূচনা উপলক্ষে ওই অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ক্যাব কেন্দ্রীয় কমিটির ভাইস প্রেসিডেন্ট এস এম নাজের হোসাইন। বিভাগীয় সাধারণ সম্পাদক কাজী ইকবাল বাহার ছাবেরীর সঞ্চালনায় ব্রিটিশ কাউন্সিলের সহায়তায় প্রকল্প পরিচিতি তুলে ধরেন প্রজেক্ট অফিসার কৃষিবিদ মিজানুর রহমান। আলোচনায় অংশ নেন জেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. রিয়াজুল হক জসিম, অধ্যাপক এম এ হালিম, কাউন্সিলর আবিদা আজাদ, ডা. অজিত কুমার সরকার, ডা. সেতু ভূষণ দাশ, ক্যাব মহানগরের সভাপতি জেসমিন সুলতানা পারু, কালের কণ্ঠের ব্যুরোপ্রধান মুস্তফা নঈম, সুপ্রভাত বাংলাদেশের প্রধান প্রতিবেদক ভূঁইয়া নজরুল, বৃহত্তর চট্টগ্রাম পোল্ট্রি খামারি অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সিরাজুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক রিটন চৌধুরী।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা