kalerkantho

বৃহস্পতিবার । ৩০ জুন ২০২২ । ১৬ আষাঢ় ১৪২৯ । ২৯ জিলকদ ১৪৪৩

ক্রমেই উজ্জ্বল পায়েল

গেল ঈদে কুড়িটিরও বেশি নাটকে দেখা গেছে তাঁকে, দিনে দিনে কেয়া পায়েল হয়ে উঠছেন নির্মাতাদের ভরসার প্রতীক। লিখেছেন ইসমাত মুমু

২৬ মে, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



ক্রমেই উজ্জ্বল পায়েল

কেয়া পায়েল ছবি : সংগৃহীত

ভরদুপুর। শুটিং নেই। হুমায়ূন আহমেদের ‘এবং হিমু’ পড়ছিলেন পায়েল। এই লেখকের যেকোনো উপন্যাস দশবারও পড়া হয়েছে, প্রতিবারই নতুন কিছু খুঁজে পান কেয়া।

বিজ্ঞাপন

বই পড়েই নাকি অভিনয় শেখেন তিনি। সেটা কেমন? ‘ভালো লেখকের বই পড়লে বইয়ের চরিত্রগুলো আমার ওপর ভর করে। পড়তে পড়তে মনে হয় আমি চরিত্রগুলো হয়ে উঠছি। সেটা অভিনয়ে বেশ কাজে দেয়’, বললেন পায়েল।

গেল ঈদে তাঁর অভিনীত ২০টিরও বেশি নাটক প্রচারিত হয়েছে। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো ‘ভুলো না আমায়’, ‘লিলুয়া’, ‘রংঢং’, ‘সুইটি আই লাভ ইউ’, ‘এক জনমে’, ‘ঘোড়ার ডিমের বিয়ে’, ‘তোমার আমি’, ‘টাকা’, ‘পরাণ’, ‘ফিফটি ফিফটি লাভ’, ‘কেন বোঝ না’ ও ‘চমন বাহার’। এক ঈদে এত নাটক করার কারণ কী? অনেকে তো বেছে বেছে কম কাজ করতে আগ্রহী। পায়েল সে রকম নন। তাঁর মতে, ‘প্রস্তাব পেলে যদি সময়-সুযোগ হয় অবশ্যই কাজটা করার চেষ্টা করি। আমার ক্যারিয়ার সবে শুরু হয়েছে। এখনই এত বাছ-বিচার করলে অনেক চরিত্র করাই হবে না। আমি চাই অনেক অনেক কাজ করতে। এর মধ্যেই হয়তো ভালো কিছু চরিত্রে কাজ করতে পারব। আমার পেশায় আমি সৎ। পরিচালক যে দায়িত্বটা আমাকে দেন, চেষ্টা করি সাধ্যমতো সেটা পালন করতে। তা ছাড়া সব পরিচালকের ভাবনাতেই ভিন্নতা আছে। ’

২০১৮ সালে শখ করে একটি বিজ্ঞাপনচিত্রে মডেল হয়েছিলেন। সেটি প্রচারের পর ওই বছরই একে একে সংগীতশিল্পী তাহসান, হাবিব ওয়াহিদ ও ইমরান মাহমুদুলের গানচিত্রে মডেল হয়েছিলেন। একই বছরের শেষের দিকে ‘একটাই আমার তুমি’ নাটকে প্রথম অভিনয়ের সুযোগ পান পায়েল। প্রথম নাটকেই সহশিল্পী পেয়েছেন আফরান নিশোকে। তবে অভিনয়ে নিয়মিত হয়েছেন ২০২০ সাল থেকে। এরপর সময়ের সব আলোচিত অভিনয়শিল্পীর সঙ্গেই দেখা গেছে এই অভিনেত্রীকে। তিন বছরে অভিনয় করেছেন দেড় শতাধিক নাটকে। ক্রমেই উজ্জ্বল তাঁর ক্যারিয়ার। প্রশংসনীয় নাটকের সংখ্যা বাড়ছে। নির্দিষ্ট কোনো অভিনেতার সঙ্গে জুটি গড়তে চান না পায়েল। তাঁর ক্যারিয়ার গ্রাফ দেখলেও সেটা বোঝা যায়। পায়েল বলেন, ‘প্রধান অভিনেতা দেখে কাজ করি না। আমি দেখি পরিচালক, তারপর গল্পে আমার চরিত্র। কারো সঙ্গে জুটি বেঁধেই আলোচনায় আসতে হবে, এমন ধারণায় বিশ্বাসী নই। ভালো চরিত্র হয়ে উঠতে পারলে দর্শক সেটা মনে রাখবে। কার বিপরীতে কয়টা নাটকে জুটি হয়েছি, সেটা কিন্তু মনে রাখবে না। তবে এটাও ঠিক, কারো সঙ্গে যদি বেশি কাজ হয়ে যায় সেটা আমাদের ইচ্ছায় নয়। পরিচালক হয়তো ভাবেন ফ্রেমটা এই জুটির ভালো আসছে। দর্শক এই জুটির নাটকগুলো দেখতে চাইছে। আমি যাঁদের সঙ্গে কাজ করি সবার খুবই সহযোগিতা পাই। ’

ছাত্রজীবন এখনো শেষ হয়নি পায়েলের। পড়ছেন সাউথইস্ট ইউনিভার্সিটিতে, আইন বিষয়ে শেষ বর্ষে আছেন। অভিনয় তিনি চালিয়ে যাবেনই, পাশাপাশি নিজেকে আইনজীবী হিসেবেও দেখতে চান পায়েল। অভিনেত্রী বলেন, ‘ক্যারিয়ারের সবচেয়ে ব্যস্ত সময় পার করছি। নিয়মিত অভিনয় করে পড়াশোনা চালিয়ে নেওয়াটা সত্যিই চ্যালেঞ্জের। এদিকে অভিনয় ক্যারিয়ারের পিক আওয়ার চলছে, সামনে ফাইনাল পরীক্ষা—ব্যস্ততা আর কাকে বলে!’

রমজানের ঈদের পর বিরতি কাটিয়ে সবে কাজ শুরু করেছেন। মাঝখানে ভারতে গিয়েছিলেন তিব্বত পাউডারের বিজ্ঞাপনের শুটিংয়ে। ‘জয়েন্ট ফ্যামিলি’ ধারাবাহিক দিয়ে ফিরলেন নাটকের শুটিংয়ে। ধারাবাহিকটির অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় করছেন পায়েল, তাঁর সহশিল্পী তৌসিফ মাহবুব।

কোরবানি ঈদের নাটকের প্ল্যানিং চলছে। কয়েকটির পাণ্ডুলিপি হাতে পেয়েছেন। শুটিং শুরু করবেন শিগগির।  

২০১৮ সালের শেষের দিকে আনিসুর রহমান মিলনের সঙ্গে ‘ইন্দুবালা’ চলচ্চিত্রে নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছিলেন। এরপর একাধিক চলচ্চিত্রে অভিনয়ের প্রস্তাব পেলেও করেননি।



সাতদিনের সেরা