kalerkantho

মঙ্গলবার ।  ১৭ মে ২০২২ । ৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ । ১৫ শাওয়াল ১৪৪৩  

‘রান্না শিখছি মায়ের বকুনিও খাচ্ছি’

২০ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



‘রান্না শিখছি মায়ের বকুনিও খাচ্ছি’

করোনার কারণে দুই বছর হলো বড় পর্দায় নেই পূজা চেরী। উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার ধকল কাটিয়ে নামলেন ‘শান’-এর প্রচারণায়। ছবিটির মুক্তি গেল পিছিয়ে। তবু দমে যাননি এই অভিনেত্রী।

বিজ্ঞাপন

তাঁকে নিয়ে লিখেছেন
  ইসমাত মুমু

পূজার পোষা বিড়ালটা কিছুটা অসুস্থ। চিকিৎসার জন্য গতকালও হাসপাতালে নিয়ে যেতে হয়েছে। এটা নিয়ে কিছুটা দুশ্চিন্তায় ‘পোড়ামন ২’ অভিনেত্রী। বলেন, ‘বিড়ালটা অসুস্থ হলে বুঝি মায়েদের মনের অবস্থা। আমরা একটু অসুস্থ হলেই মায়েরা যেভাবে উদ্বিগ্ন হয়ে ওঠেন, আমার মনটাও ওর জন্য তেমনই ছটফট করছে। ’

পূজার এখন অনেকটা অবসর। বাসায় বই পড়ে, শরীরচর্চা আর নিজের যত্ন নিয়েই সময় কাটে। ‘গেল দুই বছরে তো অনেক কিছুই পরিবর্তন হয়েছে। এর আগে ছবিগুলো করতাম। অডিশন হতো। মিটিং হতো। প্রস্তুতি নিতে হতো। এরপর শুটিং সেটে অনেকটা দিন সময় কাটত। আমি তো বছরে অনেক ছবির শুটিং করি এমন নয়। তার পরও সারা বছর একটা ব্যস্ততা ছিল। এখন কতগুলো ছবির মুক্তি আটকে আছে। নতুন যে প্রস্তাবগুলো আসছে, তা নিয়েও ভাবতে হচ্ছে। হুট করে কিছু করতে চাচ্ছি না। একটা খারাপ সিদ্ধান্ত আমার মুক্তির অপেক্ষায় থাকা ছবিগুলোর ওপরও প্রভাব ফেলতে পারে। এই মুহূর্তে যদি বলি নতুন কোনো ছবির শুটিং শিডিউল দেওয়া নেই, নতুন কোনো ছবির খবর নেই, নতুন কোনো ছবি মুক্তিরও খবর নেই’, হতাশা নিয়েই বললেন পূজা।

পূজার মুক্তির অপেক্ষায় আছে ‘শান’, ‘জ্বীন’, ‘সাইকো’, ‘হৃদিতা’, ‘ক্যাশ’, ‘মাসুদ রানা’ ও ‘গলুই’ ছবি। এর মধ্যে ‘শান’ মুক্তির কথা ছিল ৭ জানুয়ারি। নির্ধারিত দিনের দুই দিন আগে পিছিয়ে যায় ছবিটি। সেটা নিয়ে পূজা বেশ ভেঙে পড়েন। “অনেক দিন হলো আমি সিনেমায় কাজ করছি। এই ছবিটির যখন মুক্তি পেছাল, আসলেই খুব ভেঙে পড়েছি। এর কারণও আছে। দীর্ঘদিন নতুন কোনো ছবি মুক্তি পাচ্ছিল না। একের পর এক ছবির মুক্তি আটকে আছে। তা ছাড়া ব্যক্তিগতভাবে ‘শান’ আমার খুব প্রিয় একটা ছবি। বড় বাজেটের ছবিটি মুক্তি পেলে দর্শক লুফে নিত। নতুন পরিচালক হলেও ভীষণ যত্ন নিয়ে বানিয়েছেন এম রাহিম। দেখেছি পরিচালক এতটাই চিন্তা এবং ভালো কাজের চেষ্টা করেছেন, নির্ঘুম রাত গেছে। পরিচালকের পাশাপাশি আমাদেরও চেষ্টার কমতি ছিল না। কিন্তু করোনার কারণে পিছিয়ে আসতেই হলো। এটাই এখন বাস্তবতা। মেনে নিয়ে নিজেকে নতুন কিছুর জন্য প্রস্তুত করছি। সুস্থ থাকার চেষ্টা করছি। রান্না শিখছি, নষ্ট করছি, মায়ের বকুনিও খাচ্ছি। তবে শরীর মেইনটেন রাখার     চেষ্টা করছি। ’

ওয়েব সিরিজে অভিনয় করেছেন পূজা। সুমন ধরের ‘প্যারাসাইকোলজি’ সিরিজে পূজার নায়ক শ্যামল মাওলা। পূজা বলেন, ‘অবসর পেলে যেটা হয়, ওটিটিতে বাইরের দেশের অনেক কাজ দেখা হয়। সেখানে এত সুন্দর সব সিরিজ হচ্ছে! তাই আমিও লোভ সামলাতে পারলাম না। অনেকেই বলেছে, বড় পর্দার নায়িকা ওয়েবের জন্য কাজ করবে! আসলে ব্যাপারটি হলো, ভালো কাজের সঙ্গে থাকা। ওয়েবেও যত্ন নিয়ে খুব ভালো কাজ হতে পারে। তার উদাহরণ তো নিয়মিতই পাচ্ছি। বাংলাদেশেও অনেক ভালো মানের ওয়েব কনটেন্ট হচ্ছে। ’

তিনি মনে করেন, ‘আমাদের সিনেমার মানুষদের আসলে ভেঙে পড়ার কিছু নেই। অনেক সিনিয়রই বলেন যে সিনেমায় অভিনয় করতে সবচেয়ে বড় শক্তি হচ্ছে ধৈর্য। রোজ রোজ মনের মতো কাজের অফার আসবে না। নিয়মিত ব্যস্ত থাকাও সম্ভব হবে না। তবু কাজ করতে হবে। ধৈর্য ধরে এগিয়ে যেতে হবে। করোনা যেন আমাদের আরো ধৈর্যশীল করে গড়ে তুলেছে। এটা ঠিক, আমরা শিগগিরই ঘুরে দাঁড়াব। ’

চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির নির্বাচন সামনে। নির্বাচন নিয়ে উন্মাদনা আছে পূজার মধ্যেও। তবে পূজা এখনো শিল্পী সমিতির সদস্য হতে পারেননি। তিনি বলেন, ‘নির্বাচনের পরপরই সদস্য হব আশা করি। ’



সাতদিনের সেরা