kalerkantho

মঙ্গলবার । ৩ কার্তিক ১৪২৮। ১৯ অক্টোবর ২০২১। ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

বয়স হলো ৩০

১৯৯২ সালের ২ সেপ্টেম্বর, মাত্র ১৭ বছর বয়সে অভিষেক। তিন দশকের ক্যারিয়ারে অস্কার ও বাফটা জয় করেছেন পেনেলোপি ক্রুজ। গেল সপ্তাহেই ভেনিস চলচ্চিত্র উৎসবে হয়েছেন সেরা অভিনেত্রী। তাঁকে নিয়ে লিখেছেন লতিফুল হক

২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



বয়স হলো ৩০

অন্য দেশ, অন্য ভাষা থেকে এসে হলিউডে জনপ্রিয়তা পাওয়া অভিনেত্রী কম নেই। এই যেমন সালমা হায়েকের কথাই বলা যায়। মেক্সিকো থেকে এসে যিনি দারুণ সব ব্যবসাসফল ছবি উপহার দিয়েছেন। কিন্তু পেনেলোপি ক্রুজ বিরল অভিনেত্রীদের একজন। হলিউড তো বটেই একই সঙ্গে নিজের ভাষা স্প্যানিশেও সমান দাপটের সঙ্গে কাজ করেছেন। জনপ্রিয় ব্লকবাস্টার ছবির পাশাপাশি তাঁকে দেখা গেছে, সমালোচক প্রশংসিত এমনকি নামি চলচ্চিত্র উৎসবে পুরস্কৃত ছবিতেও।  টানা তিন দশক ধরে একটার পর একটা দারুণ পারফরম্যান্স দিয়ে যাচ্ছেন। দুই সপ্তাহ আগে ভেনিস চলচ্চিত্র উৎসবে এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, দুই বছর বয়স থেকেই অভিনেত্রী হতে চেয়েছেন। তাই মাত্র ১৭ বছর বয়সে তাঁর অভিষেক নিয়ে আশ্চর্য হওয়ার কিছু নেই। প্রথম ছবি ‘হ্যাম হ্যাম’ দিয়েই জাত চিনিয়েছিলেন। বিগাস লুনার এই ছবির জন্য ১৯৯২ সালে ভেনিস উৎসবে রৌপ্যসিংহ জিতেছিলেন। ছবিতে পেনেলোপির সঙ্গে ছিলেন হাভিয়ের বারদেম, প্রায় দুই দশক পর ২০১০ সালে যার সঙ্গে গাঁটছড়া বেঁধেছেন অভিনেত্রী! ক্যারিয়ারের প্রথম দশকে ‘বেল্লে ইপোক’, ‘দ্য গার্ল অব ইওর ড্রিমস’-এর মতো স্প্যানিশ ছবি করেন। বিশ্বদর্শকরা তাঁর কথা ব্যাপকভাবে জানতে পারে ‘ভ্যানিলা স্কাই’, ‘অল দ্য প্রিটি হর্সেস’, ‘ব্লো’র মতো ছবির পর।

৩০ বছরের ক্যারিয়ারে হেন চরিত্র নেই তিনি করেননি। স্প্যানিশ ছবিতে মূলত করেছেন বাস্তবধর্মী চরিত্র। কমেডি ছবি ‘ওয়াকিং আপ ইন রেনো’, থ্রিলার ‘গোথিকা’য়ও তিনি দুর্দান্ত। অ্যাকশন-অ্যাডভেঞ্চারধর্মী ‘সাহারা’, ‘পাইরেটস অব দ্য ক্যারিবিয়ান—অন স্ট্রেঞ্জার টাইডস’-এও লাস্যময়ী পোনেলোপিকে কে ভুলতে পারে?

তাঁর ক্যারিয়ার নিয়ে কথা বলতে গেলে দুই পরিচালককে নিয়ে আলাদাভাবে কথা বলতে হয়—পেদ্রো আলমোদোবার ও উডি অ্যালেন। গেল দুই যুগে পেদ্রোর সঙ্গে সাত-সাতটি সিনেমা করেছেন পেনেলোপি—‘লাইভ ফ্লেশ’, ‘অল অ্যাবাউট মাই মাদার’, ‘ভলভার’, ‘ব্রোকেন এমব্রাসেস’, ‘হুলিয়েটা’, ‘পেইন অ্যান্ড গ্লোরি’ থেকে ‘প্যারালাল মাদার্স’। সর্বশেষ ছবিটির জন্যই ভেনিসে সেরা অভিনেত্রী হয়েছেন। তখন পেদ্রোর সঙ্গে কাজ করা সম্পর্কে বলেন, ‘আমি যে আজ অভিনেত্রী হয়েছি সেটা ওরই কারণে। ধন্যবাদ আমার ওপর বিশ্বাস রাখার জন্য, অনুপ্রাণিত করার জন্য।’

উডির সঙ্গে ‘ভিকি ক্রিস্টি বার্সেলোনা’ ও ‘টু রুম উইথ লাভ’ করেছেন অভিনেত্রী। এর মধ্যে ‘ভিকি ক্রিস্টি বার্সেলোনা’র জন্য জেতেন বাফটা ও অস্কার। প্রথম স্প্যানিশ অভিনেত্রী হিসেবে অস্কারে মনোনীত ও জয়ী হন পেনেলোপি। প্রথম স্প্যানিশ অভিনেত্রী হিসেবে জায়গা পান হলিউড হল অব ফেমে। ২০১৮ সালে পান ফ্রান্সের সর্বোচ্চ চলচ্চিত্র পুরস্কার সিজার অ্যাওয়ার্ড।

দুই পরিচালকের সঙ্গে জুটি ছাড়াও আরেক অভিনেতার সঙ্গেও তাঁর জুটির কথা বলতে হয়। হাভিয়ের বারদেম। প্রথম ছবি ‘হ্যাম হ্যাম’-এর পর বর্তমান দাম্পত্য সঙ্গীর সঙ্গে তিন দশকে আরো চারটি ছবি করেছেন—‘ভিকি ক্রিস্টি বার্সেলোনা’, ‘দ্য কাউনসেলর’, ‘লাভিং পাবলো’ ও ‘এভরিবডি নোজ’। ‘চলচ্চিত্রে ওর আর আমার অভিজ্ঞতা একই রকম, এ ছাড়া নানা বিষয়েই প্রচুর মিল। ভাবলাম ওর সঙ্গেই সংসার পাতি,’ বারদেমকে বিয়ে প্রসঙ্গে বলেন অভিনেত্রী।

ভেনিসে ‘প্যারালাল মাদার্স’ ছাড়াও প্রতিযোগিতা বিভাগে ছিল ৪৭ বছর বয়সী অভিনেত্রীর আরেকটি ছবি ‘অফিশিয়াল কম্পিটিশন’। এ ছাড়া হাতে আছে আরো কয়েকটি। তবে অভিনয়ে এত দিন কাটিয়েও নিজেকে এখনো ‘ছাত্রী’ বলতেই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন তিনি, ‘আমি সব সময়ই শেখার চেষ্টা করি। অভিনেত্রী হিসেবে নিজেকে মূল্যায়ন করতে বললে বলব—ওয়ার্ক ইন প্রগ্রেস।’ অভিনয় ছাড়া পরিচালনায়ও তুমুল আগ্রহ পেনেলোপির। কয়েক বছর আগে শিশুদের ক্যান্সার নিয়ে একটি তথ্যচিত্র নির্মাণ করেন। ‘ছোটবেলা থেকেই ক্যামেরার পেছনে কাজ করতে আগ্রহী। বেশ কয়েকটি প্রচারণামূলক ভিডিও করেছি, শিশুদের লিউকোমিয়া নিয়ে তথ্যচিত্র বানিয়েছি। আরো অনেক কিছু করার পরিকল্পনা আছে।’



সাতদিনের সেরা