kalerkantho

বুধবার । ৮ বৈশাখ ১৪২৮। ২১ এপ্রিল ২০২১। ৮ রমজান ১৪৪২

বুবলীর শত্রু কে?

৪ মার্চ, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



বুবলীর শত্রু কে?

শবনম ইয়াসমিন বুবলী

কে বা কারা যেন গাড়িচাপা দিয়ে মেরে ফেলতে চায় শবনম বুবলীকে! গত সপ্তাহে খবরটা পড়ে রীতিমতো নড়েচড়ে বসেছেন অভিনেত্রীর ভক্ত-শুভাকাঙ্ক্ষী থেকে শুরু করে সাধারণ মানুষও। ‘বসগিরি’ নায়িকার শত্রু কে? লিখেছেন সুদীপ কুমার দীপ

এক বছর বিরতির পর ২১ ফেব্রুয়ারি ‘চোখ’ ছবির শুটিংয়ে ক্যামেরার সামনে দাঁড়ান শবনম বুবলী। ক্যারিয়ারের প্রথম ধাপে দাপিয়ে বেড়ানো এই অভিনেত্রী মনে করেছিলেন দ্বিতীয় ধাপেও সাচ্ছন্দ্যে পথ চলবেন। কিন্তু কে জানত জীবনের নিরাপত্তাহীনতায় ভুগতে হবে তাঁকে! কখনো ভাবনাতেও আসেনি বুবলীর, কেউ তাঁকে হত্যার পরিকল্পনা করতে পারে। ঘটনা ২৪ ও ২৫ ফেব্রুয়ারির। পর পর দুই দিন শুটিং থেকে বাড়ি ফেরার পথে আততায়ীর সম্মুখীন হয়েছেন তিনি। উল্টোদিক থেকে আসা নম্বরবিহীন আরেকটি গাড়ি বুবলীকে চাপা দিতে চেয়েছিল। নিজের গাড়িচালকের দক্ষতায় রক্ষা পান তিনি। তবে ভয় পেয়েছেন অনেক। সাধারণ ডায়েরিও করেছেন থানায়। কারা তাঁকে খুন করতে চায়, সেটাও আঁচ করতে পেরেছেন অভিনেত্রী। আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী এ বিষয়ে কিছু বলতে নিষেধ করেছে তাঁকে। ‘জিডি নম্বর সংবাদমাধ্যমে দেওয়াতেই আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী আমাকে সতর্ক করেছে। সন্দেহভাজন কারো নাম বললে সেটা তারা ভালোভাবে নেবে না। তা ছাড়া তদন্ত চলছে, এর আগে কিছু বলে দোষীদের সতর্ক করতে চান না।’

তবে কিছুটা হলেও ধারণা দিয়েছেন, ‘অনেকেই ভাবছেন হয়তো শোবিজের কেউ আমার পিছু নিয়েছেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তেমন কথাই বলছেন বেশির ভাগ মানুষ। কেউ কেউ তো শাকিব খানের কথাও বলছেন, একজন প্রযোজকের নামও ইঙ্গিত করছেন কেউ কেউ। আসলে তাঁরা কেউ নন। এরই মধ্যে টের পেয়েছি কারা আমার শত্রু। কেন আমার পেছনে লেগেছেন তাঁরা, সেটাও জানি। তবে যোগ্য প্রমাণ ছাড়া এই মুহূর্তে নাম নিতে চাই না। এখন ডিজিটাল যুগ। মোড়ে মোড়ে সিসি ক্যামেরা আছে। আমাকে যে জায়গাটায় গাড়িচাপা দিয়ে হত্যাচেষ্টা করা হয়েছিল, সেখানেও সিসি ক্যামেরা ছিল। ফুটেজ পেয়ে যাব খুব শিগগির।’

আমাকে যে জায়গাটায় গাড়িচাপা দিয়ে হত্যাচেষ্টা করা হয়েছিল, সেখানে সিসি ক্যামেরা ছিল। ফুটেজ পেয়ে যাব খুব শিগগির

এবারই প্রথম নয়। ২০১৮ সালেও একবার শুটিং থেকে ফেরার পথে বুবলীকে গাড়িচাপা দিতে চেয়েছিল। তখনো উল্টোদিক থেকে তেড়ে আসে একটা গাড়ি। অল্পের জন্য রক্ষা পান তিনি। অবশ্য তখন এটাকে দুর্ঘটনা হিসেবে নিয়েছিলেন। তিন বছর পর যখন একই ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটেছে, তাও একবার নয়, দুই-দুইবার—তখন আর সেটাকে দুর্ঘটনা বলতে নারাজ বুবলী। ‘আগে থেকেই একা চলি আমি। মা-বাবা আমাকে সেই স্বাধীনতা দিয়েছেন। কোনটা ভালো, কোনটা মন্দ—এটা ভালো করেই বুঝি। আমাদের দেশে সড়ক দুর্ঘটনাকে অনায়াসে ধামাচাপা দেওয়া যায়। কিন্তু কোনটা দুর্ঘটনা আর কোনটা ইচ্ছাকৃত হত্যা—অনেক সময় সেটা তদন্ত করা হয় না। সিনেমায় দেখেছি, আক্রোশের বশবর্তী হয়ে ভিলেন নায়ককে ট্রাকচাপা দিয়ে মারতে চায়। ভিলেনও জানে, এতে তার বিরুদ্ধে সরাসরি মামলা হবে না। এই বুদ্ধিটাই হয়তো কেউ আমার বেলায় প্রয়োগ করছে। তবে খেলাটা যখন শুরু হয়েছে, শেষটাও করতে হবে’, বললেন বুবলী।

শিগগির শুরু করবেন শাকিব খানের সঙ্গে ‘লিডার—আমিই বাংলাদেশ’ ছবির শুটিং। নিরবের সঙ্গে দুটি ছবির (‘ক্যাসিনো’ ও ‘চোখ’) পর এই ছবি দিয়েই ফের শাকিবের নায়িকা হবেন। এখন পর্যন্ত যতগুলো ছবি মুক্তি পেয়েছে বুবলীর, সব কয়টিতেই তাঁর নায়ক শাকিব। হঠাৎ কেন অন্য নায়কের সঙ্গে জুটি বাঁধলেন? ‘আমি সব সময় ভালো গল্প ও বাজেট চেয়েছি, নায়ক কে সেটা নিয়ে কমই মাথা ঘামিয়েছি। সাধারণত শাকিব খানের ছবির বাজেট বড় হয়। তাই তাঁর সঙ্গেই বেশি ছবিতে অভিনয় করেছি। ভালো গল্প ও বাজেট পেলে অন্যদের সঙ্গেও নিয়মিত অভিনয় করব।’

‘শাকিব খানের সঙ্গে জুটি’ কিংবা ‘গাড়িচাপা’ বিষয়ে অকপটে বললেও এক বছ ধরে আড়ালে থাকার বিষয়ে এখনো মুখ খুলতে নারাজ বুবলী। বলেন, ‘কেউ যখন এক বছর ধরে নিজেকে আড়ালে রাখে, সেটার পেছনে নিশ্চয়ই কিছু কারণ থাকে। আমার বেলায়ও কিছু কারণ আছে। মোক্ষম সময়ের অপেক্ষায় আছি। সময় হলেই সব বলব। সেটা হবে অনেক বড় ধামাকা।’

মন্তব্য