kalerkantho

বুধবার । ১ বৈশাখ ১৪২৮। ১৪ এপ্রিল ২০২১। ১ রমজান ১৪৪২

নতুন ট্রেনে পরিণীতি

২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



নতুন ট্রেনে পরিণীতি

পরিণীতি চোপড়া

প্রায় এক দশকের ক্যারিয়ার। এত দিনেও বলিউডের শীর্ষ অভিনেত্রীর কাতারে উঠতে পারেননি। তবে নেটফ্লিক্সে মুক্তির অপেক্ষায় থাকা ‘দ্য গার্ল অন দ্য ট্রেন’ দিয়ে নিজেকে নতুনভাবে চেনাতে চান পরিণীতি চোপড়া। পরিণীতি ও তাঁর নতুন সিনেমা নিয়ে লিখেছেন লতিফুল হক

কাগজে-কলমে পাক্কা এক দশকের ক্যারিয়ার। পরিণীতি চোপড়ার প্রথম ছবি ‘লেডিজ ভার্সেস রিকি বেহল’ মুক্তি পেয়েছিল ২০১১ সালে। এরপর ‘ইশকজাদে’, ‘শুদ্ধ দেশি রোমান্স’, ‘গোলমাল অ্যাগেইন’, ‘কেশরি’র মতো সফল ছবি করেছেন। কিন্তু সাফল্যের কৃতিত্ব পান শুধু প্রথম দুটির জন্য। কারণ ‘গোলমাল অ্যাগেইন’ বহু তারকাময়, আর কেশরি যে অক্ষয় কুমারের কারণেই হিট—সেটা পরিণীতিও মানেন। সব মিলিয়ে প্রায় এক দশক পেরিয়ে গেলেও অভিনেত্রী হিসেবে পরিণীতির অগ্রগতি চোখে পড়ার মতো নয়। নিজের ব্যর্থতা ভাবিয়েছে অভিনেত্রীকেও। ঘুরে দাঁড়ানোর পথও বের করেছেন নিজেই, ‘অভিনেত্রী হিসেবে কিভাবে ভালো করা যায়, বিরতি নিয়ে সেটাই ভেবেছি গত এক বছর। অন্য অনেকের মতো আমি ছোটবেলা থেকেই অভিনেত্রী হতে চাইনি। প্রথম ছবি করার পর থেকেই বিষয়টি নিয়ে ভাবতে থাকি। বলিউড কঠিন এক দুনিয়া। আমার গায়ের রং, অভিনয় দক্ষতা, পোশাক ইত্যাদি নিয়ে নানা সমালোচনা হতে থাকে শুরু থেকেই। এসব কাজ থেকে মনোযোগ সরিয়ে দেয়। কিন্তু এখন আমি নিজের কাজ নিয়ে দারুণ আত্মবিশ্বাসী, কী করতে চাই জানি।’

নতুনভাবে ক্যারিয়ার নিয়ে লক্ষ্য ঠিক করা পরিণীতি জানিয়েছেন সামনে যত সম্ভব কম ভুল করার চেষ্টা করবেন। ‘ভালো চিত্রনাট্যের বিষয়টা আমার হাতে নেই, প্রস্তাবটা প্রযোজক-পরিচালকের পক্ষ থেকে আসতে হবে। তবে একটা সময় মনে হয় নিজেরও চেষ্টা করতে হবে। তখন বিভিন্ন পরিচালককে ফোন করে তাঁদের সঙ্গে কাজের আগ্রহ প্রকাশ করি। এভাবেই এই ছবিতে (দ্য গার্ল অন দ্য ট্রেন) সুযোগ পাই। আমি জানি অসাধারণ প্রতিভাধর অভিনেত্রী আমি নই। নিজের সীমাবদ্ধতা মেনে নিয়েই সর্বোচ্চটা নিংড়ে দিতেই চাই’, বলেন পরিণীতি।

‘নতুন যাত্রা’ শুরুর পর পরিণীতির প্রথম ছবি ‘দ্য গার্ল অন দ্য ট্রেন’ নেটফ্লিক্সে আসছে ২৬ ফেব্রুয়ারি। এরপরই ১৯ মার্চ আসবে ‘সন্দীপ অওর পিংকি ফারার’। গেল বছর ২০ মার্চ মুক্তির কথা থাকলেও করোনার কারণে এক বছর পিছিয়েছে ছবিটি। দিবাকর বন্দ্যোপাধ্যয়ের ছবিতে সুযোগ পাওয়াকে ‘স্বপ্নের মতো’ বলে অভিহিত করেছেন পরিণীতি। পর পর তাঁর সিরিয়াস ঘরানার দুই ছবি মুক্তি পাচ্ছে, তাহলে কি প্রচলিত বাণিজ্যিক ছবিতে আর তাঁকে দেখা যাবে না? ‘অবশ্যই যাবে। তবে যে চরিত্রই করি চেষ্টা করব সেটা নতুনভাবে উপস্থাপন করতে’, বলেন পরিণীতি।

‘দ্য গার্ল অন দ্য ট্রেন’ পরিচালনা করেছেন নেটফ্লিক্স সিরিজ ‘বার্ড অব দ্য ব্লাড’খ্যাত ঋভু দাশগুপ্ত। ছবিটি তৈরি হয়েছে ২০১৫ সালে প্রকাশিত পলা হকিন্সের একই নামের উপন্যাস অবলম্বনে। উপন্যাসটি থেকে ২০১৬ সালে ছবি হয় হলিউডেও। প্রধান চরিত্রে ছিলেন এমিলি ব্লান্ট। হিন্দি ছবি মুক্তির আগে তাই পরিণীতি ও এমিলির মধ্যে তুলনা এসেই যাচ্ছে। এটাকে অন্যায্য বলেও মনে করছেন না পরিণীতি, ‘সত্যি বলতে তুলনাটা আমার ভালোই লাগছে। এই গল্প দিয়েই ভিন্ন ধরনের চরিত্রে অভিনয় শুরু করেছেন এমিলি। আমিও তথাকথিত বাণিজ্যিক ছবির দুনিয়া থেকে পুরোপুরি ভিন্নধর্মী চরিত্র করছি এই ছবিতেই।’

ট্রেলার দেখেই বোঝা গেছে, মূল উপন্যাস থেকে কিছুটা বদল এনেছেন পরিচালক। যোগ করেছেন নতুন দুই নারী চরিত্র। চরিত্র দুটিতে আছেন অদিতি রাও হায়দারি ও কীর্তি কুলহারি। এ ছাড়া আছেন ‘লায়লা মজনু’, ‘বুলবুল’ অভিনেতা অবিনাশ তিওয়ারিও।

মন্তব্য