kalerkantho

মঙ্গলবার । ৭ আশ্বিন ১৪২৭ । ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০। ৪ সফর ১৪৪২

ওয়েবে নতুন ৫

৩১ জুলাই থেকে ৪ আগস্ট—মুক্তি পেয়েছে একগুচ্ছ ওয়েব সিরিজ ও সিনেমা। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য পাঁচটি নিয়ে লিখেছেন লতিফুল হক

৬ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৪ মিনিটে



ওয়েবে নতুন ৫

‘রাত আকেলি হ্যায়’তে নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী

শকুন্তলা দেবী

ভারতের ‘মানব কম্পিউটার’ বলা হয় শকুন্তলা দেবীকে। কর্ণাটকের এই প্রতিভাবান নারী যন্ত্র ছাড়াই মুখে মুখে টপাটপ যেকোনো হিসাব কষতে পারতেন। নাম উঠেছিল গিনেস বুকেও। এ ছাড়া বোহেমিয়ান জীবন, সমকামীদের নিয়ে বই লেখাসহ নানা কারণে শকুন্তলা দেবী আকর্ষণীয় এক চরিত্র। এমন চরিত্রকে পর্দায় তুলে আনার কথা হচ্ছিল আগে থেকেই। অবশেষে সেটা পূর্ণতা পেয়েছে অনু মেননের হাত ধরে। ২০১৯ সালে শুটিং হওয়া ছবিটি এ বছরের মাঝামাঝি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তির কথা ছিল। কিন্তু করোনার কারণে শেষ পর্যন্ত মুক্তি পায় আমাজন প্রাইমে।

মুক্তির পর অভিনেত্রী সুষ্মিতা সেনসহ অনেকেই প্রধান চরিত্রে বিদ্যা বালানের অভিনয়ের প্রশংসা করলেও সমালোচকরা সন্তুষ্ট হতে পারেননি। অনেকের মতে, এটা কোনোভাবেই শকুন্তলার ‘সৎ বায়োপিক’ নয়। এখানে সঠিকভাবে তাঁর চরিত্র তুলে ধরার চেয়ে বরং হাসি-ঠাট্টার মাধ্যমে দর্শক ধরে রাখার চেষ্টা করা হয়েছে।

রাত আকেলি হ্যায়

হানি ত্রিহান মূলত কাস্টিং ডিরেক্টর। ‘রাত আকেলি হ্যায়’ তাঁর পরিচালিত প্রথম চলচ্চিত্র। প্রথম ছবিতেই বলা যায় বাজিমাত করেছেন। ৩১ জুলাই নেটফ্লিক্সে আসার পর থেকেই সবাই নওয়াজউদ্দিন সিদ্দিকী ও রাধিকা আপ্তের ছবিটি নিয়ে প্রশংসায় পঞ্চমুখ। অবশ্য ট্রেলার মুক্তির পর ছবিটি নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছিল। অনেকেই হলিউড ছবি ‘নাইভস আউট’-এর সঙ্গে এটির মিল খুঁজে পান। তবে পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপ ‘নকল’তত্ত্বের বিরোধিতা করে বলেছিলেন, এই ছবির চিত্রনাট্য তিনি ২০১৫ সালে পড়েছিলেন। মুক্তির পর তাঁর কথার সত্যতা মিলেছে। ট্রেলারে থ্রিলার মনে হলেও এটি পুরোপুরি থ্রিলার নয়। বরং থ্রিলারের মোড়কে পুরুষতান্ত্রিক সমাজের নানা কালো দিক উন্মোচন করা হয়েছে। ছবির শুরু বনেদি পরিবারের কর্তার মৃত্যুর মধ্য দিয়ে। তদন্তে নামে সাব-ইন্সপেক্টর জটিল যাদব। ছবির গল্প, অভিনয়ের সঙ্গে ব্যাপক প্রশংসা পাচ্ছে সিনেমাটোগ্রাফি। যে কাজটি করেছেন ২০১৮ সালের বহুল প্রশংসিত ছবি ‘তুমবাড়’-এর সিনেমাটোগ্রাফার পংকজ কুমার।

লুটকেস

২০১৯ সালের শেষের দিকে মুক্তির কথা ছিল কমেডি ঘরানার ছবিটির। কিন্তু নানা জটিলতায় দিন ঠিক হয় এ বছরের ১০ এপ্রিল। করোনার কারণে সেটাও পেছায়। শেষ পর্যন্ত ৩১ জুলাই মুক্তি পেয়েছে ডিজনি প্লাস হটস্টারে। এক গ্যাংস্টারের টাকাভর্তি সুটকেস পায় চালচুলোহীন এক ব্যক্তি। এরপর কী হয় তা নিয়ে গল্প। রাজেশ কৃষ্ণান পরিচালিত ছবিটির সবচেয়ে বড় সম্পদ অভিনয়। বিভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করেছেন কুনাল খেমু, রণবির শোরে, গজরাজ রাও, বিজয় রাজ, রসিকা দুগ্গলের মতো অভিনেতা-অভিনেত্রী। ‘চেনা’ গল্প হলেও দারুণ হাস্যরস তৈরির জন্য পরিচালকের প্রশংসা করেছেন সমালোচকরা।

‘বন্দিশ ব্যান্ডিটস’-এ শ্রেয়া চৌধুরী ও ঋত্বিক ভৌমিক

বন্দিশ ব্যান্ডিটস

ভারতের প্রথম মিউজিক্যাল সিরিজ। আট পর্বের সিরিজটি আমাজন প্রাইমে মুক্তি পেয়েছে ৪ আগস্ট। গল্প শাস্ত্রীয় সংগীতশিল্পী রাধে ও পপস্টার তামান্নাকে নিয়ে। দুই আলাদা ব্যক্তিত্বের মানুষ কিভাবে কাছাকাছি আসে সেটাই দেখা যাবে সিরিজে। রাধে ও তামান্না চরিত্রে আছেন ঋত্বিক ভৌমিক ও শ্রেয়া চৌধুরী। গুরুত্বপূর্ণ ‘পণ্ডিতজি’ চরিত্রে আছেন নাসিরউদ্দিন শাহ। চরিত্রটি অভিনেতা নিজেই লিখেছেন। এই সিরিজ দিয়েই ওয়েবে অভিষেক হচ্ছে কিংবদন্তি এ অভিনেতার, ‘ওয়েবই এখন ভবিষ্যৎ, সামনে সিনেমা হল থাকবে কি না তা নিয়ে আমি সন্দিহান।’

সিরিজটি পরিচালনা করেছেন নাসিরউদ্দিনের থিয়েটার দলের সাবেক ছাত্র আনন্দ তিওয়ারি। এই সিরিজের বেশির ভাগ পাত্র-পাত্রী নতুন। দীর্ঘ সময় ধরে তাদের শাস্ত্রীয়সংগীতে প্রশিক্ষণ দেওয়া ও যন্ত্রসংগীত শেখানো হয়েছে। ছবির এগারোটি গান তৈরি করেছেন শঙ্কর এহসান লয়।

দি আমব্রেলা একাডেমি ২

কমিক বই অবলম্বনে জনপ্রিয় সিরিজের আরেকটি উদাহরণ ‘দি আমব্রেলা একাডেমি’। গল্পটা বেশ মজার—হঠাৎই দুনিয়ার নানা প্রান্তে ৪৩ শিশুর জন্ম হয়। অথচ জন্মের আগমুহূর্ত পর্যন্ত এসব নবজাতকের মায়েরা কেউ অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন না! এক ধনকুবের ৪৩ জনের মধ্য থেকে সাতজনকে দত্তক নেন। সবারই আছে বিশেষ ক্ষমতা। এই খুদে সুপারহিরোদের নিয়েই গড়ে ওঠে ‘দি আমব্রেলা একাডেমি’। প্রথম পর্ব মুক্তির পর মাঝারি ধরনের প্রতিক্রিয়া পেয়েছিল সিরিজটি। ৩১ জুলাই মুক্তি পেয়েছে দ্বিতীয় সিজন। এবারেরটির প্রতিক্রিয়া প্রথমটির চেয়ে আরো ভালো। এর মধ্যেই তৃতীয় সিজন আসারও ইঙ্গিত দিয়েছে নেটফ্লিক্স। কানাডায় শুটিং হওয়া সিরিজটির প্রধান চরিত্রে আছেন এলেন পেজ, টম হুপার প্রমুখ।

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা