kalerkantho

সোমবার । ২৬ শ্রাবণ ১৪২৭। ১০ আগস্ট ২০২০ । ১৯ জিলহজ ১৪৪১

করোনায় এলো প্রয়াণ দিবস

হুমায়ূন স্মরণে ভিন্ন আয়োজন

১৯ জুলাই হুমায়ূন আহমেদের অষ্টম মৃত্যুবার্ষিকী। প্রতিবছর কলম জাদুকরের প্রয়াণ দিবসে বিভিন্ন ধরনের আয়োজন থাকে। করোনা বাস্তবতায় এবার সব হিসাব-নিকাশই পাল্টে গেল। এবারের আয়োজন নিয়ে বলেছেন মেহের আফরোজ শাওন

১৬ জুলাই, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ২ মিনিটে



হুমায়ূন স্মরণে ভিন্ন আয়োজন

৩১ ডিসেম্বর, ২০০৪। নুহাশপল্লীর লিচুতলায় হুমায়ূন আহমেদ ও মেহের আফরোজ শাওন

আমি আসলে ভেবেই পাচ্ছিলাম না এবার কী করা যায়। প্রতিবছর মৃত্যুবার্ষিকীতে তো নুহাশপল্লীর আশপাশের এতিমখানার বাচ্চারা বেড়াতে আসে। ওরা কোরআন তিলাওয়াত করে। নুহাশপল্লীর ভেতরে ঘোরাঘুরি করে চারপাশটা মুখর করে তোলে। হুমায়ূন আহমেদের পছন্দের খাবার রান্না করে ওদের খাওয়াই। এবার এমন একটা পরিস্থিতি, কোনো ধরনের জনসমাগমই করতে পারব না। তার চেয়ে বড় কথা, খবর নিয়ে জানলাম যে এতিমখানায় নাকি কোনো বাচ্চা নেই। ভেবেছিলাম এবার এতিমখানায় খাবার পাঠিয়ে দেব। এতিমখানায় বাচ্চারা না থাকায় আমার মাথায় প্রশ্ন এলো, ওরা কোথায় গেল! ওরা তো এতিম, কোথায় গিয়ে উঠল ওরা! ওদের জন্য ভেবে ভেবে মনটা ভীষণ খারাপ হয়েছে।

সিদ্ধান্ত নিয়েছি, ওদের জন্য বরাদ্দ রাখা বাজেটটা অন্য খাতে ব্যয় করব। তিন ভাগে ভাগ করেছি। প্রথম ভাগটা আদিবাসীদের জন্য। ঢাকার বিভিন্ন পার্লারে যেসব আদিবাসী মেয়ে কাজ করত কিন্তু করোনায় চাকরি হারিয়েছে, তাদের সাহায্য করব। মধুপুর ভাওয়াল অঞ্চলের সম্প্রদায়ের একটা সংগঠন আছে, সেখানেও সাহায্য করব। বাজেটের আরেকটা ভাগ রেখেছি পতিতাদের জন্য। আমরা একটা পতিতাপল্লীর খবর নিয়েছি। করোনায় তাদের অবস্থাও তো খারাপ। অনেকে না খেয়ে দিন কাটাচ্ছে। তাদেরও সাহায্য করব। প্রান্তিক দরিদ্র জনগোষ্ঠীর জন্যও রেখেছি বাজেটের একটা অংশ।

সত্যি বললে, হুমায়ূন আহমেদের মৃত্যুবার্ষিকী এলে নিজেকে আড়াল করে ফেলি। পত্রিকায় এ বিষয়ক কিছু বলতে ভালো লাগে না। ‘মৃত্যু’ শব্দটাকে আমি এড়িয়ে চলি। কারণ হুমায়ূনের মৃত্যু হয়েছে, এই সত্যটা আমি মানতেই চাই না। হুমায়ূন আহমেদের জন্মদিনের আয়োজন করি মহা ধুমধামে। বইমেলা, সাহিত্য পুরস্কার প্রদান, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ নানা আয়োজন থাকে। মৃত্যুবার্ষিকীতে তার জন্য নিবিড়ভাবে প্রার্থনা করি। এবারও নিষাদ-নিনিতকে নিয়ে নুহাশপল্লীতে যাব, হুমায়ূন আহমেদের জন্য দোয়া করে আসব।

অনুলিখন : ইসমাত মুমু

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা