kalerkantho

রবিবার । ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০। ৩ ফাল্গুন ১৪২৬। ২১ জমাদিউস সানি ১৪৪১

উপন্যাসের নায়িকা

ধারাবাহিক নাটকেই তাঁর যত ব্যস্ততা। ‘আগুন পাখি’ নিয়ে তাঁর উচ্ছ্বাস একটু বেশিই। ফিরেছেন মডেলিংয়ে, এ নিয়েও উচ্ছ্বাসটা কম নয়। মৌটুসী বিশ্বাসকে নিয়ে লিখেছেন ইসমাত মুমু

৩০ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ | পড়া যাবে ৩ মিনিটে



উপন্যাসের নায়িকা

হাসান আজিজুল হকের ‘আগুন পাখি’ অনেকেই পড়ে থাকবেন। ২০০৬ সালে প্রকাশিত উপন্যাসটি অবলম্বনে নির্মিত হচ্ছে ধারাবাহিক নাটক ‘আগুন পাখি’। উপন্যাসের মূল চরিত্র আমেনার চরিত্রে দেখা যাবে মৌটুসীকে। লেখকের মা জোহরা খাতুনের জীবন ফুটে উঠেছে চরিত্রটিতে। মৌটুসীর কাছে তাই ‘বিশেষ কিছু’ এই ধারাবাহিক।। “পরিচালক পারভেজ আমিন ফোন করে বলেন, ‘আগুন পাখি’ বইটা একটু পড়ো। তারপর আমরা বসব। পড়ার সময়ই বুঝলাম আমেনার চরিত্রটা ফুটিয়ে তুলতে বেশ পরিশ্রম  করতে হবে। পড়ার পর পরিচালক আমাকে আমেনা চরিত্রটিই দিলেন”—বললেন মৌটুসী।

বৃদ্ধ আমেনার ভয়েসওভার দিয়ে শুরু হয় গল্প, পর্দায় দেখানো হয় কিশোরী বয়সের আমেনাকে। এরপর বড়বেলা ও বৃদ্ধকাল। ‘আমেনার চোখে দেশভাগ, দুর্ভিক্ষ, দাঙ্গা উঠে এসেছে গল্পে। এমন একটি চরিত্রের জন্য যেকোনো শিল্পীই মুখিয়ে থাকবেন। আমি ভাগ্যবতী, আমাকে খুঁজে বের করে চরিত্রটি করার সুযোগ দিয়েছেন পরিচালক।’

পুরনো আমলের বাড়ি খুঁজে বের করে সেখানে শুটিং হয়েছে। কেমন শাড়ি পরবেন, চুল কেমন থাকবে—এগুলো ঠিক করতেই অনেক সময় লেগে গেছে।

মৌটুসী ছাড়াও ধারাবাহিকটিতে আরো অভিনয় করেছেন নাজনীন চুমকি, রোকেয়া রফিক বেবি, শম্পা রেজা, শহীদুজ্জামান সেলিম, আজাদ আবুল কালাম, ইন্তেখাব দিনার। আছেন কয়েকজন জুনিয়র শিল্পীও। প্রত্যেকেই চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিয়েছেন এটি। ‘গেল বছরের সেপ্টেম্বরে নওগাঁয় শুটিং করেছিলাম। নওগাঁয় মাটির দোতালা ঘর আছে। ওখানে ব্রিটিশ পিরিয়ডের ফ্লেভারটা পাওয়া গেছে।’

কবে নাগাদ প্রচার শুরু হবে সেটা জানেন না মৌটুসী। তবে দীপ্ত টিভি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, এপ্রিলে প্রচার শুরু হতে পারে। সদ্য প্রয়াত ইশরাত নিশাতও আছেন এই ধারাবাহিকে। তবে পর্দায় তাঁকে দেখা যাবে না। মৌটুসী বলেন, “বৃদ্ধা হওয়ার প্রশিক্ষণ নিয়েছি ইসরাত নিশাত আপার কাছ থেকে। উনার বাড়িতে আমি যেতাম। আমাকে বলেছিলেন, ‘তোকে আমার পাপেট বানাবো না। তোকে ভাবতে শেখাব। ভাবনার জানালাগুলো খুলে দেব। ভেবে তুই ঠিক করবি এই বৃদ্ধ বয়সে তুই কি কুঁজো হয়ে বসবি নাকি সোজা হয়ে বসবি। কুঁজো হলে কেন হবি, গলা কতটা ভারি হবে, কেন ভারি হবে—এসব বলতেন। আরো বলতেন, তাকানোর মধ্যে জীবনের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। ইশরাত আপা নেই, এটা ভাবতেই পারি না। উনার মৃত মুখটা ভুলে যেতে চাই, হাসিখুশি চেহারাটাই মনে রাখব।’ 

শুরু করেছেন তৌকীর আহমেদের ধারাবাহিক ‘রুপালি জোছনায়’র শুটিং। তৌকীরের নির্দেশনা উপভোগ করেন মৌটুসী, ‘তৌকীর ভাইয়ের সঙ্গে আগে একটা ঈদের নাটক করেছিলাম। তারও নয়-দশ বছর আগে করেছিলাম একটা ধারাবাহিক। তাঁর সঙ্গে কাজ করার সুযোগ আমার কাছে শিক্ষা সফরের মতো।’

এজাজ মুন্নার ধারাবাহিক ‘শহরালী’ প্রচার হচ্ছে এনটিভিতে। আর এক লট শুটিংয়ের পরই শেষ হবে ধারাবাহিকটি।

গত বছর ‘আগুন পাখি’তে অভিনয় করতে গিয়ে একটা সিনেমা হাতছাড়া করেছেন। দেশের বাইরে এক মাস শুটিং হওয়ার কথা ছিল। ইচ্ছে থাকা সত্ত্বেও সিনেমাটা করতে পারেননি। এখন নতুন দুটি সিনেমায় তাঁর অভিনয়ের কথা প্রায় চূড়ান্ত। শিগগির জানাবেন সে খবর। তবে মৌটুসী উচ্ছ্বসিত অন্য কারণে, ‘ইদানিং কয়েকটা ব্র্যান্ডের ফটোশুট করলাম। কিছুদিন আগে করলাম ব্রাইডাল শুট। অভিনেতা অপূর্বর স্ত্রী অদিতি ডিজাইনার, তাঁর ডিজাইনের পোশাকে শুট করলাম শম্পা আপা, বাঁধন, মিথিলা আর আমি। টিনা রাসেলের কালেকশনের শুটও করলাম। এগুলো আমার ভালো লেগেছে, কারণ অনেকদিন পর মডেলিংয়ে ফিরলাম।’

মন্তব্য



সাতদিনের সেরা